বড় লাফ দিতে চাইলে আগে চার পা পেছাতে হয়: জিৎ

প্রকাশ: ২২ অক্টোবর ২০১৯     আপডেট: ২২ অক্টোবর ২০১৯      

বিনোদন প্রতিবেদক

কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেতা জিৎ

বাংলাদেশ ও পশ্চিমবাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা জিৎ। প্রথমবার আয়োজিত ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গত সোমবার ঢাকায় আসেন তিনি। আলোঝলমলে ওই অ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রাম যোগ দেয়ার আগে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন তিনি। কথা বলেন দুই বাংলার চলচ্চিত্রের নানা সমস্যা ও প্রতিকার নিয়ে।

দুই বাংলার প্রথম এ আয়োজনে এসে কেমন লাগছে? 

এমন আয়োজনে আসতে পেরে অত্যন্ত খুশি আমি। কারণ বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে আমাদরে সিনিয়র যারা আছেন তারাও চেষ্টা করে আসছেন, আমরাও চেষ্টা করে যাচ্ছি কীভাবে দুই বাংলা মিলে যৌথভাবে কাজ করতে পারে। কীভাবে আমরা আরও বেশি মানুষের কাছে পৌছাতে পারি। বিগত বছরে কয়েকটি যৌথভাবে কাজও করেছি। সেটা আমাদের প্রডাকশন থেকে এবং বাইরের প্রডাকশন থেকেও। সেটা অবশ্য আমাদের বাংলা ভাষাকে গ্লোবালি নিয়ে যেতেই।  

বছর আগেও যৌথপ্রযোজনায় বেশ কয়েকটি ছবিতে দেখা গেছে আপনাকে। এখন আর দেখা যাচ্ছে না কেনো?

কখনও কখনও বড় ঝাম্প করতে চার পা পেছাতে হয়। আমরা পিছিয়েছি বড় ঝাপ দেয়ার জন্য। এখন অবশ্যই বড় এবং ভালো কিছু হবে।

বাংলাদেশে নতুন যৌথ প্রযোজনার  নীতিমালা হয়েছে। এই জন্যই কী এ প্রক্রিয়ায় নতুন ছবি নির্মাণ হচ্ছে না?

এই নীতিমালা সম্পর্কে এখনও আমি কিছু জানিনা। যখন জানবো তখন এই বিষয়ে মন্তব্য করতে পারব। তবে যৌথ প্রযোজনায় ছবি নির্মাণের নীতিমালার নিয়ম যদি কঠিন হয়ে থাকে তাহলে সেটা সহজ করা উচিত বলে আমি মনে করি। 

এপার বাংলা বা ওপার বাংলা যে বাংলাই বলিনা কেনো বলিউডের মতো আমরা চলচ্চিত্র নিয়ে চ্যালেঞ্জ নিতে পারছিনা? সিনেমার ক্ষেত্রে দু্ই বাংলার সমস্যা কী?

বিভিন্ন ধরনের সমস্যাই রয়েছে। যদিও সমস্যাগুলো সব জায়গাতেই থাকে। সে সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে ভালো কিছু করতেই আমরা দুই বাংলা একত্র হয়ে কাজ করার চেষ্টা করছি। আশা করি আমার সমস্যাগুলো খুঁজে বের করে সুস্থ কাঠামোর মধ্যে কাজ করতে পারব। 

দুই বাংলার সিনেমার বাজারের ক্ষেত্রে পজেটিভ দিক কোনটি বলে আপনি মনে করেন?

 এ বিষয়ে প্রথমেই বলবো আমাদের দর্শক। বাংলা ছবির প্রচুর দর্শক রয়েছে।

সাফটা চুক্তির আওতায় ভারত ও বাংলাদেশে যে ছবি আমদানি-রপ্তানি হচ্ছে এ ক্ষেত্রে দেখা যায় পশ্চিমবঙ্গের ছবি এ দেশে ব্যাপক আকারে রিলিজ দেয়া হয়। কিন্তু সেখানে বাংলাদেশে ছবি সেভাবে রিলিজ দেয়া হয় না। এর কারণ কী?

এই জন্যই এই অনুষ্ঠান। এটা শুধু অ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রাম নয়। নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করতেও এসেছি আমরা। দুই বাংলায় কীভাবে সমান হারে ছবি প্রদর্শিত হবে কোথায় কী পোস করতে হবে সে বিষয়েই আমরা আলোচনা করবো।