পাওয়া গেল সৃজিতের নতুন ফেলুদা

প্রকাশ: ১২ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ১২ নভেম্বর ২০১৯      

বিনোদন ডেস্ক

সৃজিতের ওয়েব সিরিজের ফেলুদা হলেন টোটা রায় চৌধুরী

প্রথমবারের মতো ওয়েব সিরিজ নির্মাণ করতে চলেছেন কলকাতার জনপ্রিয় পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। ওয়েব সিরিজটির নাম 'ফেলুদা ফেরত'। 

সম্প্রতি নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক প্রোফাইলে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে এ কথা জানান পরিচালক নিজেই।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন বলছে, পরিচালকের ওই স্ট্যাটাসের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রব উঠেছে, কে হবেন নতুন ফেলুদা। ফেলুদার ভূমিকায় অভিনয়ের জন্য তিনজনের নাম নিয়ে জল্পনা শুরু হয়। আর তারা হলেন- অনির্বাণ ভট্টাচার্য, টোটা রায় চৌধুরী ও যিশু সেনগুপ্ত। ফেলুদার চরিত্রে কে থাকবেন, তা নিয়ে দর্শকদের মধ্যে উত্তেজনা ছিল তুঙ্গে।

অবশেষে মঙ্গলবার পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় চূড়ান্ত নাম প্রকাশ করেছেন ফেলুদা আর জটায়ুর চরিত্রে কারা থাকছেন। তার ওয়েব সিরিজে ফেলুদার ভূমিকায় দেখা যাবে অভিনেতা টোটা রায় চৌধুরীকে। জটায়ুর ভূমিকায় অনির্বাণ চক্রবর্তী।

এ প্রসঙ্গে পরিচালক বলেন, কেবলমাত্র অডিয়েন্স পোল নয়, অনেকগুলো বিষয় একসঙ্গে কাজ করছে। আমি পাবলিক ভোট নিয়েছিলাম ঠিকই কিন্তু সেখানে উল্লেখ করেছিলাম আরও অনেক ফ্যাক্টর রয়েছে। অনির্বাণের (ভট্টাচার্য) হইচইয়ের সঙ্গে চুক্তি রয়েছে। আবির ওয়েব সিরিজ করবে কি করবে না তা নিয়ে ওর দ্বন্দ্ব রয়েছে। সবথেকে বড় কথা টোটাকে ‘টিনটোরেটর যিশু’ দেখেই বলেছি কোনোদিন যদি আমি ওয়েব সিরিজ করি সেখানে তোকেই  নেব। তাছাড়া টোটার চেহারার সঙ্গে ফেলুদার স্কেচের অদ্ভুত মিল। সবমিলিয়ে,  টোটাই সিরিজের ফেলুদা।'

জটায়ুর চরিত্রে আগেই ঠিক করে নিয়েছিলেন অনির্বাণ চক্রবর্তীকে। তবে খোঁজ চলছে তোপসে ও মগনলাল মেঘরাজের। সৃজিত আরো বলেন, 'এবার তোপসের খোঁজ শুরু করব। নতুন মুখকেই দেখতে পাবেন দর্শক।' সুতরাং, সৃজিতের পরিচালনায় নতুন ফেলুদা-তোপসের জুটিকে দেখতে পাওয়া যাবে।

ফেলুদানির্ভর প্রথম চলচ্চিত্র ছিল ‘সোনার কেল্লা’। এই ছবি মুক্তি পায় ৪৫ বছর আগে, ১৯৭৪ সালে। ‘সোনার কেল্লা’ ছাড়া সত্যজিৎ নিজে আর মাত্র একটি ফেলুদানির্ভর ছবি তৈরি করেছেন, ‘জয় বাবা ফেলুনাথ’। মুক্তি পায় প্রথম ছবির পাঁচ বছর পরে, ১৯৭৯ সালে। সত্যজিৎ রায় পরিচালিত দুটি ছবিতেই ফেলুদার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, তোপসের ভূমিকায় সিদ্ধার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং জটায়ুর ভূমিকায় সন্তোষ দত্ত।