‘সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে উভয়কে ছাড় দিতে শিখতে হয়’

প্রকাশ: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০     আপডেট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০   

বিনোদন প্রতিবেদক

আবুল হায়াত ও শিরিন দম্পতি

আবুল হায়াত ও শিরিন দম্পতি

অভিনেতা আবুল হায়াত। বাংলাদেশের কিংবদন্তি এক অভিনেতা। ১৯৭০ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি মেজ বোনের ননদ মাহফুজা খাতুন শিরিনকে বিয়ে করেন। দেখতে দেখতে সেই দাম্পত্য জীবনের ৫০তম বিবাহবার্ষিকী পূর্ণও হয় তাদের। কিছুদিন আগে ঘটা করে সম্পর্কের অর্ধশত বছর পালন করা হয়। আবুল হায়াত ও শিরিন দম্পতির দুই সন্তান বিপাশা ও নাতাশা। 

ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে কথা হয় এ অভিনেতার সঙ্গে। জানান সম্পর্ক,সংসার ও সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার কিছু মন্ত্রের কথা। বলেন, সম্পর্ক টিকে থাকে বিশ্বাসের উপর। প্রতিটি সম্পর্কেই বিশ্বাস থাকা অপরিহার্য।’

অভিনেতা আবুল হায়াতের অভিনয় শুরু থিয়েটারে। দেশের অন্যতম নাট্যদল নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের সঙ্গে যুক্ত আছেন তিনি। এই দলটির হয়ে সবশেষ ‘দেওয়ান গাজীর কিসসা’ নাটকে তার অভিনয় দেখা গেছে মঞ্চে। নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছেন আসাদুজ্জামান নূর।থিয়েটারে অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু হলেও পরবর্তীতে টেলিভিশন নাটক, সিনেমায় অভিনয় করে দেশজুড়ে পেয়েছেন তারকাখ্যাতি। এখনো সমানতালে অভিনয় করে চলেছেন। পাশাপাশি দাম্পত্যজীবনেও দারুণ সুখী তিনি।

আবুল হায়াত বলেন, ‘সংসার জীবনে পারস্পরিক বিশ্বাস, আস্থা ভীষণ জরুরি। দুজন মানুষ দুই পরিবেশ থেকে এসে একসঙ্গে বসবাস শুরু করে। এজন্য উভয়কে ছাড় দিতে শিখতে হয়। সম্পর্কের ব্যাপারে শ্রদ্ধাশীল হতে হয়।’

১৯৭০ সালে আবুল হায়াতের সঙ্গে বিয়ে হয় মাহফুজা খাতুন শিরিনের। ১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ জন্ম নেয় তাদের প্রথম সন্তান বিপাশা হায়াত। এর ছয় বছর পর জন্ম নেয় নাতাশা।

অভিনেতা–নির্মাতা তৌকীর আহমেদের সঙ্গে বিপাশা হায়াতের বিয়ে হয়। অন্য মেয়ে নাতাশার বিয়ে হয় অভিনেতা শাহেদের সঙ্গে। দুই মেয়েই এখন সংসার জীবনে দারুণ সুখী।