করোনা যুদ্ধে এবার যোগ দিলেন বলিউডের আবেদনময়ী অভিনেত্রী বিদ্যা বালান। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের মোকাবিলায় সামনে থেকে যারা লড়ছেন, তাদের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি।
ভারতের বিভিন্ন জায়গার স্বাস্থ্যকর্মীদের ১ হাজার পিপিই কিট দেবেন বলে জানিয়েছেন বিদ্যা। তার এ ঘোষণায় তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। নিজের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এনিয়ে তিনি একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। সেখানে বিদ্যা জানিয়েছেন এ কথা। খবর সংবাদ প্রতিদিনের

ওই ভিডিও বার্তায় অভিনেত্রী আরও বলেন, সীমান্তে যেভাবে আমাদের রক্ষা করে সেনা, ঠিক সেভাবেই কভিড ১৯-এর বিরুদ্ধে যুদ্ধে আমাদের রক্ষার দায়িত্ব তুলে নিয়েছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। সীমান্তে সৈন্যদের মতো তাদেরও প্রয়োজন কিছু সরঞ্জামের। প্রয়োজন পিপিই কিটের। অথচ আমাদের এখন সেটারই অভাব। দেশের চিকিৎসক, নার্স এবং ওয়ার্ডবয়রা প্রতিদিন করোনা রোগীদের সঙ্গে সরাসরি সংস্পর্শে আসছেন। যদি একজন স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হন বাকিদের ২ থেকে ৩ সপ্তাহ কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ফলে হাসপাতালগুলি সর্বশক্তি দিয়ে কাজ করতে পারছে না। এই কারণেই তিনি ব্যক্তিগতভাবে দেশের ১ হাজার জন স্বাস্থ্যকর্মীকে পিপিই কিট দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

বিদ্যা সবার কাছে আবেদন করেছেন, সবাই মিলিতভাবে যেন আরও ১ হাজার পিপিই কিট স্বাস্থ্যকর্মীদের দেওয়ার ক্ষেত্রে তাঁকে সাহায্য করেন। সেক্ষেত্রে বিদ্যা নিজে তাকে ব্যক্তিগত ভিডিও বার্তায় শুভেচ্ছা জানাবেন। অভিনেত্রী জানিয়েছেন, প্রতিটি পিপিই কিটের দাম ৬৫০ টাকা। এর মধ্যেই ধরা রয়েছে ট্যাক্স ও ভারতে যে কোনও স্থানে যাতায়াতের খরচ। এই পিপিই কিট সংক্রান্ত অনুদানের জন্য তিনি www.tring.co.in নামে একটি ওয়েবসাইট লঞ্চ করেছেন। সেখানে বিদ্যার প্রোফাইলে ঢুকে জানাতে হবে আপনি কতগুলি পিপিই কিট দিতে চান। সেইমতো ট্রানজাকশন করুন। তার কয়েক দিনের মধ্যে অভিনেত্রীর টিমের তরফ থেকেই জানিয়ে দেওয়া হবে আপনার দেওয়া কিট কোন কোন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিদ্যা সবশেষে মনে করিয়ে দেন, আপনার দেওয়া পিপিই কিট অনেক জীবন বাঁচাতে পারে। যেভাবে আমরা দেশের সেনাকে সমর্থন করি, আমাদের এই পরিস্থিতিতে দেশের স্বাস্থ্যকর্মীদেরও সাহায্য করা দরকার।যোগ করেন তিনি।