প্রীতম হাসান। কণ্ঠশিল্পী ও সংগীত পরিচালক। সম্প্র্রতি 'কাবাবের হাড্ডি' শিরোনামের গানে কণ্ঠ, সংগীত পরিচালনার পাশাপাশি ভিডিওতে অংশ নিয়েছেন। নতুন এই গান ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হলো তার সঙ্গে-

'কাবাবের হাড্ডি' গানটি কেমন হয়েছে?

ভালোই। এর আগে 'বিয়ানসাব' ও 'গার্লফ্রেন্ডের বিয়া' থেকে 'কাবাবের হাড্ডি' যেন আলাদা হয়, শুরু থেকেই এ ভাবনা মাথায় নিয়ে কাজ করেছি। সব মিলিয়ে পুরো কাজটি ছিল চ্যালেঞ্জিং। গানচিলের ইউটিউব চ্যানেলে ২৫ অক্টোবর 'কাবাবের হাড্ডি' প্রকাশ হবে। আশা করছি, শ্রোতারা ভালো একটি গান উপহার পাবেন।

এরই মধ্যে গানটির তো ভিডিওচিত্র ধারণ করা হয়েছে-

এটি বড় বাজেটের মিউজিক ভিডিও হয়েছে। ৭৩ জন শিল্পী ছিলেন ইউনিটে। প্রায় দেড়শ লোকের ইউনিট। কাজটি করে খুব মজা পেয়েছি। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান গানচিল মিউজিকের সহযোগিতায় কাজটি সুন্দরভাবে শেষ হয়েছে। এটি নির্মাণ করেছেন ছোটপর্দার জনপ্রিয় নির্মাতা কাজল আরেফিন অমি। আর আদনান ভাই [আদনান আর রাজীব] তো ছাতা হিসেবে ছিলেনই। কণ্ঠ দেওয়ার পাশাপাশি ভিডিওতে প্রতীক হাসানও রয়েছেন। এ ছাড়া মারজুক রাসেল, শবনম ফারিয়া, জিয়াউল হক পলাশকে দেখা যাবে এই ভিডিওতে।

এই সময়ে এই গান বেছে নেওয়ার কারণ কী?

সত্যি বলতে, করোনাকালে আমরা এক ধরনের বিষণ্ণতার মধ্যে আছি। গানটি করার কারণ, এ অবস্থা থেকে মুক্তি পাওয়া ও দেওয়া। সেখান থেকে নিজেদের বের করে আনার জন্যই মজা করে কাজটি করা। তা ছাড়া সামনে বিয়ের মৌসুম। এটিও বিবেচনায় রেখেছি। তবে বিয়ে নিয়ে এটিই শেষ গান। যেজন্য আমি নিজেও গানে পারফর্ম করেছি।

লকডাউনের কোন বিষয়টি এখন মিস করেন?

ঘুম খুব মিস করি। লকডাউনের সময় তো যখন খুশি তখন ঘুমাতে পারতাম, জাগতে পারতাম। সব ছিল নিজের নিয়ন্ত্রণে। এখন সময়ের ঘড়ির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হচ্ছে। করোনাকালের আগে যে পরিমাণ কাজ করতাম, এখন তো এর চেয়ে বেশি করতে হচ্ছে। তাই আগের মতো ঘুমাতে পারি না।

আপনার প্রায় প্রতিটি গানেই শ্রোতারা নতুন বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে পরিচিত হচ্ছেন। এই ভিন্নতা কীভাবে এলো?

দেখুন, আমি ছোটবেলা থেকেই প্রচুর ইংরেজি গান শুনেছি। পাশাপাশি নিজের দেশের গানও শুনেছি। আমি ভেবেছি, সামনে নতুন একটি মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি শুরু হচ্ছে। যেখানে ইন্টারন্যাশনাল সাউন্ডের সঙ্গে তাল মেলানোর জন্য নতুন একটি সাউন্ডের প্রয়োজনীয়তা থাকবে। আমি যখন চিন্তা করলাম, আমাদের যে সাউন্ড তার সঙ্গে বাইরের সাউন্ডের ফিউশন কীভাবে করা যায়। তার সঙ্গে আমি এটা ভাবতাম, বাংলাদেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন কিছু কীভাবে দেওয়া যায়, যা সবার কাছে নতুন লাগবে। এভাবেই হয়তো আমি কিছু দিতে পেরেছি বা দেওয়ার চেষ্টা করছি এখনও।

নতুন কোনো চলচ্চিত্রে সংগীত পরিচালনা করছেন কি?

লকডাউনের কারণে অনেক কাজই থমকে ছিল। এম এ রাহিম পরিচালিত 'শান' ও দীপঙ্কর দীপনের 'অপারেশন সুন্দরবন' ছবির গানের সংগীত পরিচালনা করেছি। আশা করছি গানগুলো শ্রোতাদের ভালো লাগবে।