১৯৮৭ সালে বন্যার্তদের সাহায্যের উদ্দেশ্যে কনসার্টের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু হয় বাংলাদেশ মিউজিক্যাল ব্যান্ডস অ্যাসোসিয়েশন (বামবা)র । সেই থেকে শুরু, দীর্ঘ তিন দশক ধরে দেশের ব্যান্ড সঙ্গীতের একমাত্র এই সংগঠনটি নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে দেশীয় ব্যান্ডের প্রসার ও প্রতিভাবান ব্যান্ডগুলোকে স্থায়ী একটি প্লাটফর্ম দেয়ার লক্ষ্যে। আর সেই লক্ষ্যে এবারও সংগঠনটি আয়োজন করলো নতুন সদস্য সংগ্রহের কার্য্যক্রম। 

গত ৭ ফেব্রুয়ারি যমুনা ফিউচারে পার্কের  ‘ইয়ামাহা মিউজিক বাংলাদেশ’  প্রাঙ্গণে অডিশন আড়ম্বর এক অডিশনের মাধ্যমে হলো নতুন সদস্য বাচাই অনুষ্ঠান। যাতে অংশগ্রহণ করে সারাদেশ থেকে আসা ১৭টি ব্যান্ডদল।  এই অডিশন পর্বের নাম দেয়া হয় ‘ইয়ামাহা-বামবা জ্যাম সেশন’। যাতে বিচারকের আসনে বসা ছিলেন বামবার সভাপতি হামিন আহমেদ, সহসভাপতি এস.এম আলম টিপু (ওয়ারফেইজ), সাধারণ সম্পাদক শাকিব চৌধুরী (ক্রিপটিক ফেইট), সহকারী সাধারণ সম্পাদক কাজী আশেকীন সাজু (আর্টসেল), কোষাধ্যক্ষ আলী সুমন (পেন্টাগন)। কার্যকরী পরিষদের ব্যান্ড সদস্য  সোলস, দলছুট, নেমেসিস, পাওয়ারসার্জও ছিলো।   বিকাল ৪টা থেকে শুরু হয়ে  এই অডিশন পর্ব। চলে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। 

এর আগে বামবা  নতুন বছরে ১৩ জানুয়ারী  সারা বাংলাদেশ এর সকল ব্যান্ড এর মধ্য থেকে নতুন সদস্য ব্যান্ড অন্তর্ভুক্তির আমন্ত্রন জানায়।  এই আমন্ত্রণে বামবা ব্যাপক সাড়া পায়। সারা দেশ থেকে ৮৫ টি জনপ্রিয়, উঠতি এবং নতুন ব্যান্ড সদস্য অন্তর্ভুক্তির আবেদন করে। এই   ৮৫  ব্যান্ড থেকে ১৭ টি ব্যান্ডকে  ইয়ামাহা মিউজিক বাংলাদেশনের প্রাঙ্গণে অডিশনের আহ্বান জানানো হয়। সেই ১৭ ব্যান্ড নিয়ে  চলে সাড়ে চার ঘন্টার জ্যাম সেশন।  এতে ১৭ টি ব্যান্ড তাদের নিজস্ব ধারার একটি করে গান পরিবেশন করে। 

এই জ্যাম সেশন   ইয়ামাহা মিউজিক বাংলাদেশ সহযোগীতায় এবং বামবা এর বর্তমান সদস্য ব্যান্ড দের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান শুরুর আগে বামবা এবং ইয়ামাহা মিউজিক বাংলাদেশ এবং বামবার মধ্যে একটি চুুক্তি সাক্ষর হয়।  যে চুক্তি  বাংলাদেশ মিউজিক ইন্ডাষ্ট্রি এর সার্বিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে অবদান রাখবে বলে মনে করছে বামবা।