২০২০-২০২১ অর্থ বছরে ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে অনুদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। 

মঙ্গলবার তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে এ বছর অনুদানপ্রাপ্ত ২০টি চলচ্চিত্রের নাম ঘোষনা করা হয়েছে।  

এ বছর মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক তিনটি, শিশুতোষ দুইটি ও সাধারণ শাখায় ১৫টিসহ ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে অনুদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। গত বছরের চেয়ে সিনেমার সংখ্যা ৪টি বাড়িয়েছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। 

মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক শাখায় ৬০ লাখ টাকা অনুদান পাচ্ছে জেড এইচ মিন্টুর ‘ক্ষমা নেই’, নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের ‘সাড়ে তিন হাত ভূমি, উজ্জল কুমার মণ্ডলের ‘মৃত্যুঞ্জয়ী' সিনেমাগুলো।

শিশুতোষ শাখায় অনুদান পাচ্ছে দুটি সিনেমা। এগুলো হল-এফ এম শাহীন এবং হাসান জাফরুল পরিচালিত ‘মাইক’, লুবনা শারমিন পরিচালিত 'নুলিয়াছড়ির সোনার পাহাড়’।সাধারণ শাখায় অনুদানের জন্য নির্বাচিত হয়েছে কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘জয় বাংলা,অনিরুদ্ধ রাসেলের  'জামদানী’, জাহিদুর রহিম অঞ্জনের ‘চাঁদের অমাবস্যা’, জয়া আহসান প্রযোজিত ও মেজবাউর রহমান সুমন পরিচালিত ‘রইদ’, অমিতাভ রেজা চৌধুরীর ‘পেন্সিলে আঁকা পরী’, অরুণ চৌধুরীর ‘জলে জ্বলে’। 

এছাড়াও অরুণা বিশ্বাসের প্রযোজনা, পরিচালনায় ‘অসম্ভব’, মির্জা সাখাওয়াৎ হোসেন পরিচালিত ‘ভাঙন' রকিবুল হাসান চৌধুরীর (পিকলু) পরিচালিত'' দাওয়াল’, খোরশেদ আলম খসরুর প্রযোজিত  এস এ হক অলিক পরিচালিত ‘গলুই’, ইকবাল হোসাইন চৌধুরী পরিচালিত ‘বলী’, আবদুস সামাদ খোকন পরিচালিত ‘শ্রাবণ জোৎস্নায়’, আশুতোষ ভট্টাচার্য (আশুতোষ সুজন) প্রযোজিত ও পরিচালিত ‘দেশান্তর’,  ইব্রাহিম খলিল মিশু পরিচালিত ‘দেয়ালের দেশ’, কবিরুল ইসলাম রানা (অপূর্ব রানা) পরিচালিত ‘জলরঙ’ নামের সিনেমাগুলো অনুদান পেয়েছে।