যশ চোপড়ার ‘বীর জারা’ ছবিতে শাহরুখ খানের কয়েদি নম্বর ছিল ৭৮৬। আর এখন মাদক মামলায় অভিযুক্ত শাহরুখ পুত্রের আরিয়ান খান হলেন ৯৫৬ নম্বর কয়েদি।

বাস্তবে ছেলের জীবনে এমনটা ঘটবে তা হয়তো কখনো ভাবেন নি শাহরুখ বা তার ভক্তরা। 

বৃহস্পতিবার আর্থার রোড জেলে কোয়ারেন্টাইন শেষ হয়েছে মাদককাণ্ডে গ্রেপ্তার আরিয়ান খান আরবাজ মার্চেন্টদের। কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পর অভিযুক্ত পাঁচজনকে জেলের মূল ব্যারাকে নিয়ে যাওয়া হয়। মূল জেলে তাদের স্থানান্তর করার পর কয়েদিদের নির্দিষ্ট নম্বর দেওয়া হয়েছে। আর সেখানেই আরিয়ানের পরিচয় এখন ‘কয়েদি নম্বর ৯৫৬’।

আর্থার রোড কারাগারের কর্মকর্তা নিতিন ওয়েচাল সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, শাহরুখ-গৌরীর পক্ষ থেকে গত ১১ অক্টোবর ৪,৫০০ রুপি আরিয়ানকে পাঠানো হয়েছে।  কারাগারে অবস্থানকালে একজন কয়েদিকে তার পরিবার প্রতি মাসে সর্বোচ্চ এই অঙ্কের টাকাই পাঠাতে পারে। এই অর্থ দিয়েই তাকে চালাতে হবে হাতখরচ। এই অর্থে কারাগারের ক্যানটিন থেকে কিনতে পারবে কেক, বিস্কুটের মতো শুকনো খাবার। তবে আপাতত বাড়ি থেকে পাঠানো পোশাকই পরছেন আরিয়ান। এখনো কারাগারের পোশাক দেওয়া হয়নি তাদের। কারাগার সূত্রে জানা গেছে, সেখানকার খাবার খেতে পারছেন না আরিয়ান। খাবারের থালা দেখেই বলছেন, ‘ক্ষুধা নেই’। ক্যানটিন থেকে কেনা বিস্কুট খেয়ে থাকছেন বলিউডের কিং খানের ছেলে।

অন্যদিকে বিশেষ এনডিপিএস আদালত বৃহস্পতিবার সংরক্ষিত রেখেছে আরিয়ান খানের জামিনের আবেদনের রায়। এদিন এনসিবির তরফে শাহরুখ পুত্রের জামিনের বিরোধিতা করে একাধিক বক্তব্য রাখা হয়েছে। ম্যারাথন সওয়াল-জবাব পর্ব শেষে রায় সংরক্ষিত রাখেন বিচারক ভিভি পাটিল। দশেরার ছুটির পর আগামী বুধবার খুলবে কোর্ট। সেইদিন আরিয়ান-সহ আরবাজ ও মুনমুন ধমেচার জামিনের আবেদনের রায় ঘোষণা করবে সেশন কোর্ট। ততদিন পর্যন্ত আর্থার রোড জেলের ‘কয়েদি নম্বর ৯৫৬’ হিসাবেই কাটবে আরিয়ানের জীবন। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস