বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খানের বড় ছেলে আরিয়ান খানের স্বাস্থ্য নিয়ে চিন্তায় পড়েছে কারাগার কর্তৃপক্ষ।  এ কারণে সম্প্রতি তাকে স্পেশাল ব্যারাকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কারাগারের ভিতরে আরিয়ানের নিরাপত্তাও আরও বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তার উপর ২৪ ঘণ্টা নজর রাখছেন পুলিশের কর্মকর্তারা। খবর ইন্ডিয়া টুডের

গত ৩ অক্টোবর ভারতের মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে মুম্বাইয়ের আর্থার রোড কারাগারে আছেন আরিয়ান।  

কারাগার সূত্রে জানা গেছে, আরিয়ান কারও সঙ্গে কথা বলছেন না। কারাগারের পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিতে না পারার পাশাপাশি সেখানকার খাবারও মুখে তুলতে পারছেন না । আর এতেই তার স্বাস্থ্য নিয়ে চিন্তায় পড়েছে কর্তৃপক্ষ।

এর আগে কারাগার কর্তৃপক্ষের সূত্রে জানা গেছিল, শাহরুখ খান এবং গৌরি খান ছেলের ক্যান্টিন খরচ বাবদ সাড়ে চার হাজার রুপি মানি অর্ডার করে পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু তার জন্য বাড়ির খাবার আনার অনুমতি এখনও পাননি খান দম্পতি। আরিয়ানের জামিনের পরবর্তী শুনানির দিন ২০ অক্টোবর।

এই মুহূর্তে কারাগারে কাউন্সিলিং চলছে বছর ২৩ বছরের আরিয়ানের। নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর নিয়ম অনুযায়ী, মাদক কাণ্ডে কাউকে গ্রেপ্তার করা হলে তার কাউন্সিলিং-এর বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়। শোনা যাচ্ছে, কাউন্সিলিং-এর সময় যথেষ্ট সহযোগিতাও করছেন আরিয়ান। সংশ্লিস্ট সূত্রে জানা গেছে, কাউন্সিলিং-এর সময় এনসিবি কর্মকর্তাদের কাছে ভালো মানুষ হওয়ার ব্যাপারে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়েছেন শাহরুখ পুত্র। সেই সঙ্গে সমাজের দরিদ্র মানুষের কল্যাণে কাজ করার কথাও জানিয়েছেন আরিয়ান।