বলিউড অভিনেতা শহিদ কাপুর অভিনীত 'কবীর সিং ২০১৯ সালে বক্স অফিস দারুন সাফল্য পায়। তবে সফলতার পাশাপাশি বিতর্কও কুড়িয়েছিল ছবিটি। বিশ্ব বাজার ছাড়াও শুধুমাত্র ভারতের বাজার থেকেই ২৫০ কোটি রুপি আয় করেছিল 'কবীর সিং'।  এই ছবির কারণে এক ধাপে অনেকটাই এগিয়ে গেছিলেন শহীদ।পরবর্তী সময়ে অভিনেতা নিজেও স্বীকার করেছিলেন এই ছবির এমন অভাবনীয় সাফল্যের পর কেরিয়ারের এক নতুন দিগন্ত খুঁজে পেয়েছিলেন তিনি।

এই ছবির সাফল্যের পর শহীদ নিজ থেকে সেইসব পরিচালকের কাছে যাওয়া শুরু করেন যাদের পরিচালনায় এক একেকটি ছবি ইতিমধ্যেই বলিউডের ২০০, ২৫০ কোটি রুপির ক্লাবে এন্ট্রি নিয়ে নিয়েছে। সম্প্রতি, 'জার্সি' ছবির ট্রেলার রিলিজ অনুষ্ঠানে নিজের মুখে একথা ফাঁস করেছেন শহীদ স্বয়ং। অভিনেতা জানান, 'কবীর সিং-এর অভাবনীয় সাফল্যের পর ভিখারির মতো নামি দামি পরিচালক, প্রযোজকদের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরেছেন। যাদের পরিচালিত, প্রযোজিত ছবি ইতিমধ্যেই বক্স অফিস থেকে ২০০, ২৫০ কোটি রুপি তুলে নিয়েছে তাদের কাছেই কাজের জন্য গিয়েছিলেন শহীদ।

এর কারণ প্রসঙ্গে শহীদ বলেন, 'কবীর সিং '-এর আগে আমার আর কোনও ছবি বক্স অফিস থেকে এত আয় করেনি। ব্যাপারটা সম্পূর্ণ আমার কাছে নতুন ছিল। তাই বুঝে উঠতে পারছিলাম না কী করা উচিত আমার। শহীদ আরও বলেন, এর আগে কোনওদিনও ২০০ কোটির ক্লাবের সদস্য ছিলাম না। তাই সত্যিই জানতাম না কী করব। সেইসময় ওই পরিচালকদের কাছে গিয়ে নিজেকে হাজির করে কাজ চাওয়াটাই সঠিক মনে হয়েছিল আমার।

বলিউড লাইফকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নতুন ছবি 'জার্সি' প্রসঙ্গে শহীদ জানান, এই ছবির প্রস্তাব তিনি প্রথমে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। আর এই ছবির প্রস্তাব তাকে দেওয়া হয়েছিল 'কবীর সিং' মুক্তি পাওয়ার সপ্তাহ দু'য়েক আগেই। শেষপর্যন্ত 'জার্সি'-র অরিজিনাল ভার্সনটি বসে দেখেন তিনি। সেইসময়ে তার পাশে ছিল স্ত্রী মীরা রাজপুত এবং অভিনেতার ম্যানেজার। শহীদ জানান 'জার্সি' দেখতে দেখতে এতটাই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন যে কেঁদে ভাসিয়েছিলেন তিনি। তারপরেই ঠিক করেন 'জার্সি'-র রিমেকে কাজ করবেন তিনি। শহীদের ভাষায়,আমার কেরিয়ারে এখনও পর্যন্ত সেরা ছবি হতে চলেছে জার্সি'।