একটি প্রাইভেটকারে দাউ দাউ করে জ্বলছিল আগুন। এরই পাশ দিয়ে সমস্ত শক্তি নিয়ে দৌড়ে যাচ্ছেন অনন্ত জলিল। উদ্দেশ্য কিছু লোককে প্রতিহত করা। মারপিটের মাধ্যমে এক মিনিটেই ধরাশায়ী করলেন তাদের। এরপরই ফাইট ডিরেক্টর আরমান থামিয়ে দিলেন। পাশেই চেয়ারে বসা ভারত থেকে আসা তামিল অভিনেতা প্রদীপ রাওয়াত। তিনি অনন্তর মারপিট দেখে খুশি হলেন। হাত তালি দিয়ে উৎসাহ দিলেন অনন্তকে।

দৃশ্যটি 'নেত্রী - দ্য লিডার' ছবির। চিত্রনায়িকা বর্ষাকে মুখ্য করে নির্মাণ হচ্ছে ছবিটি।  প্রথম ধাপের শুটিং শেষে মানিকগঞ্জ সিঙ্গাইরের ধল্লা গ্রামে চলছে সিনেমাটির দ্বিতীয় ধাপের দৃশ্যধারণ।

সিনেমাটিতে পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন তামিল পরিচালক উপেন্দ্র মাধব ও অনন্ত। পাশাপাশি অনন্ত জলিল অভিনয়ও করছেন। ছবিতে নেত্রীর দেহরক্ষীর চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি।

গত ২০ নভেম্বর শুরু হয় সিনেমার শুটিং। তার আগে প্রথম লটের শুটিং হয় বাংলাদেশের সিলেট ও ভারতের হায়দরাবাদে। শুটিং স্পটে অনন্ত জানালেন, তুরস্ক, ভারত ও বাংলাদেশের শিল্পীরা আজকের শুটিংয়ে যুক্ত হয়েছেন। আমাদের ওল্ড হোম সিঙ্গাইরের ধল্লায় শুটিং হচ্ছে।

বাংলাদেশ ও তুরস্কের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হচ্ছে ছবিটি। বাংলাদেশ থেকে অনন্ত জলিলের প্রযোজনা সংস্থা মনসন ফিল্ম এটি প্রযোজনা করছে। অনন্ত ও বর্ষা ছাড়াও এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন কাজী হায়াত, দক্ষিণ ভারতের তিন অভিনেতা- রবি কিষাণ, প্রদীপ রাওয়াত ও কবির দুহান সিং।