দুবাইয়ে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়ার সময়ে মুম্বাই বিমানবন্দরে আটক করা হয় বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্ডেজকে। সুকেশ চন্দ্রশেখরের বিরুদ্ধে ২০০ কোটি টাকার প্রতারণার মামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে রোববার এই অভিনেত্রীর বিদেশযাত্রায় বাধা দেওয়া হয়। তবে সন্ধ্যার পর জানা যায়, কিছুক্ষণ জেরা করার পর তাকে মুম্বাই বিমানবন্দর থেকে বাড়ি চলে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন তদন্তকারীরা।

আনন্দবাজারের খবর অনুযায়ী, এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) এই বলিউড নায়িকার বিদেশভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এজন্য তাকে ভারত ছাড়তে বাধা দেওয়া হয়। ধারণা করা হয়েছিল, জ্যাকুলনকে দিল্লিতে নিয়ে জেরা করা হতে পারে। কিন্তু তেমন কিছু ঘটেনি। শেষ পর্যন্ত তাকে মুম্বাই বিমানবন্দর থেকে বেরোনোর অনুমতি দেওয়া হয়।

তবে একাধিক সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, খুব তাড়াতাড়ি দিল্লিতে নিয়ে জেরা করা হবে জ্যাকুলিনকে। গত অক্টোবরে ২০০ কোটি টাকার প্রতারণা মামলায় দু’বার মুম্বাইয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইডির দফতরে হাজিরা দেন শ্রীলঙ্কার নাগরিক জ্যাকুলিন। 

সম্প্রতি প্রতারণায় অভিযুক্ত সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে জ্যাকুলনের সম্পর্ক নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠে‌ছে । আর্থিক প্রতারণার একটি মামলায় চার্জশিট পেশ করেছে ইডি। সেখানে সুকেশের বিরুদ্ধে এক ওষুধ সংস্থার প্রাক্তন মালিক শিবেন্দ্র সিংহ এবং মালবেন্দ্র সিংহের পরিবারের সঙ্গে ২০০ কোটি টাকার প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে।  একই অভিযোগ রয়েছে সুকেশের স্ত্রী লিনা পলের বিরুদ্ধেও।  ওই মামলায় ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছেন এই দম্পতি।

ইডির দাবি, প্রতারক সুকেশ জ্যাকুলিনকে কোটি কোটি রুপির উপহার দিয়েছেন। সংস্থাটি জানিয়েছে, এ বছর জানুয়ারি থেকে সুকেশ আর জ্যাকুলিনের সম্পর্ক। এই সময়ের মধ্যে সুকেশ জ্যাকুলিনকে ১০ কোটি রুপির উপহার দিয়েছিলেন। এর মধ্যে ৫২ লাখ রুপির ঘোড়া থেকে শুরু করে ৯ লাখ রুপির বিড়ালও রয়েছে। যদিও জ্যাকুলিন সুকেশের সঙ্গে সম্পর্ক অস্বীকার করেছেন। পাশাপাশি সুকেশকে চেনেন না বলেও দাবি করেছেন।