নায়ক ইমন শিল্পী সমিতির বর্তমান কমিটির আন্তর্জাতিক সম্পাদক। নিজে সংগঠনটির নেতৃত্বে থেকেও মিশা-জায়েদ কাউকেও পাশে পাননি বলে জানালেন। 

সোমবার শিল্পী সমিতির বর্তমান দায়িত্বশীলদের প্রতি ক্ষোভ ঝেড়ে ইমন বলেন, ‘শিল্পী সমিতি থেকে কাউকে পাশে পাইনি। প্রথমদিন জায়েদ খান একবার ফোন দিয়েছিল। ধরতে না পেরে পরে কল ব্যাক করলে সে ধরেনি। আর কাউকেই পাইনি। সাতদিন পর আজকে মিশা ভাই কল করে বলে আমেরিকা থেকে দেশে এসেছি। পাশে আছি। কিন্তু সাতদিন পর সব বিপদ কেটে যাওয়ার পর পাশে আছি বলে লাভটা কি?’

মানসিক ট্রমায় পড়ে শিল্পী সতিতির নেতাদের ভালো করেই চেনা হয়েছে ইমনের। তাই যে সংগঠন শিল্পীদের খারাপ সময়ে তার সদস্যদের পাশে থাকে না। সেই সংগঠনের হয়ে আর নির্বাচন করবেন না বলেই জানালেন এ নায়ক। 

ইমন বলেন, নাটকের শিল্প সংঘকে দেখলাম তাহসান মিথিলা ফারিয়ার নামে মামলা হওয়ায় পাশে থাকার বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। কিন্তু চলচ্চিত্রের শিল্পী সমিতি তা করেনি। কোনো দোষ করলাম না তাও এই সংগঠন একটা ফোন করে থেকে মানসিক সাপোর্টও পাইনি। সামনে নির্বাচন আছে। যে সংগঠনের সদস্যরা খারাপ সময়ে শিল্পীদের পাশে থাকে না তাদের সঙ্গে নির্বাচন করবো না

কিছুদিন আগে সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের একটি ফোনালাপ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। যেখানে ফোনের অপর প্রান্তে ছিলেন চিত্রনায়ক ইমন ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি।

ভাইরাল হওয়া ক্লিপটি নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন নায়ক ইমন। তিনি স্বীকার করেছেন ফাঁস হওয়া ফোনালাপটি সত্যি। তবে এটি সাম্প্রতিক নয়, বছর দুই আগের। 

এ ঘটনায় দুই দফা ডিবির  ও একবার র‌্যাবের হেড অফিসে যেতে হয়েছে তাকে।