বলিউডের ঝলমলে দুনিয়া ছেড়ে ইসলামের বিধি-বিধান অনুযায়ী জীবনযাপনের জন্য সানা বেছে নিয়েছেন ত্যাগের জীবন। যে জীবনকে ধারণ করেছেন, সেখানে ঝলমলে দুনিয়ার জীবনযাপনের কোনো মূল্য নেই। সাবেক এই অভিনেত্রী  নিজেকে সেভাবেই গুছিয়ে নিয়েছেন। গুজরাটের মুফতি আনাসকে বিয়ে করে যাপন করছেন ইসলামী জীবন।

বিয়েরপর প্রথমবারের মতো স্বামীকে নিয়ে ওমরাহ করতে গেছেন তিনি। ওমরাহ পালনের ফাঁকে কাবা শরীফের কালো গিলাফ সেলাইয়ের কাজে অংশ নেওয়ার সৌভাগ্য অর্জন করেছেন সানা খান। 

নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে এই তথ্য জানিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন তিনি। ভিডিওর ক্যাপশনে সানা খান লিখেছেন, ‘আমি স্বপ্নেও কখনো ভাবিনি যে আল্লাহ তায়ালা আমার জন্য এত বড় সৌভাগ্য লিখে রেখেছেন যে আমি কাবা শরীফের গিলাফ সেলাইয়ের মহান কাজে অংশ নিতে পারবে। আল্লাহ অনেক দয়ালু।’


বিরল এ কাজের সুযোগ করে দেওয়ায় সৌদি সরকারকেও ধন্যবাদ জানান তিনি। এ ছাড়া স্বামী মুফতি আনাসকেও স্মরণ করেন সানা।

প্রসঙ্গত সানা খান ‘ওয়াজাহ তুম হো’, ‘জয় হো’সহ  একাধিক বলিউড সিনেমায় অভিনয় করে সিনেপ্রেমীদের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। অনেক আঞ্চলিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন সানা। 

সানা খান এমন একজনকে নিজের সারা জীবনের সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন, যিনি একজন ধার্মিক মানুষ। ইসলামের শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছেন। পড়াশোনা করেছেন ইসলাম নিয়ে। জীবনযাপন করেন ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক। মাওলানা মুফতি আনাস ভারতের গুজরাটের বাসিন্দা।