জন্মদিনে প্রতিবারই একাধিক দামি উপহার পান সালমান খান। এবছরও এর ব্যতিক্রম হয়নি। একাধিক ডায়মন্ড ব্রেসলেট উপহারে পেয়েছেন তিনি। কিন্তু তারপরও সালমানের সবচেয়ে প্রিয় সেই টারকয়াজ স্টোনের ব্রেসলেটটিই।

এত দামি সব ব্রেসলেট থাকতেও সালমানের কেন এই ব্রেসলেটটিই সবচেয়ে প্রিয় তা জানতে অনেকের আগ্রহের সীমা নেই। সম্প্রতি সালমান জানালেন সেই রহস্য। বলিউডের এই সুপারস্টার জানালেন, ঠিক এমনই একটি ব্রেসলেট তার বাবা সেলিম খানের ছিল। ছোটবেলায় বাবার হাতে এই ব্রেসলেটটা দেখতে তার খুব ভালো লাগত। সুযোগ পেলেই ব্রেসলেটটি নিয়ে খেলতেন তিনি। পরে যখন তিনি বলিউডে পা রাখলেন একদম সেরকম একটি ব্রেসলেট তাকে বানিয়ে দিয়েছিলেন সালমানের বাবা। নীল স্টোনের ওই ব্রেসলেটটি আসলে ফিরোজা।

সালমানের ভাষায়, এই ফিরোজা পাথরটি তাকে অনেক বিপদের হাত থেকে রক্ষা করেছে। সালমান বলেন ‘যখনই আমার কাছাকাছি কোনও নেগেটিভ এনার্জি আসে, এই পাথর সেই নেগেটিভিটি অ্যাবজর্প করে নেয়। পাথরের গায়ে শিরা দেখা দেয়। আর তার কিছুদিনেই মধ্যেই পাথরটা ভেঙে যায়।’

এখন যে স্টোনটি ব্রেসলেটে লাগানো আছে সেটা নাকি ৭ নম্বর ফিরোজা।

জন্মদিনের আগের রাতেই সাপের ছোবল খেয়েছিলেন সালমান খান। পরে একটি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন এই খবর জানতে পেরেই তার বাবা প্রথম কথা জিজ্ঞাসা করেছিলেন, তারা সাপটির কোনও ক্ষতি করেননি তো! উত্তরে সালমান জানিয়েছিলেন, সাপটিকে কোনও আঘাত করা হয়নি বরং সযত্নে জঙ্গলে ছে়ড়ে আসা হয়েছে।