জীবনে অপ্রাপ্তি নেই চিত্রনায়িকা পূজা চেরির। তাই সর্বদা প্রাপ্তির সুখ নিয়েই বেঁচে থাকা হয়। চলতি বছরের শুরুতে গত বছরের পূজার প্রাপ্তির কথা জানতে চাইলে এভাবেই ফেলে আসা জীবনের সালতামামি টানেন তিনি। পূজা বলেন, আসলে আমার জীবনে অপ্রাপ্তি কিছু আছে বলে মনে হয় না। এই যে সদ্য গত হওয়া বছরটা সুস্থভাবে পরিবার নিয়ে বেঁচে ছিলাম, আছি- এর চেয়ে বড় প্রাপ্তি আর কী হতে পারে? তার এমন মন্তব্য শুনেই বুঝতে পারলাম। এই পূজা আর সেই ছোট্ট পূজা নেই। অনেক পরিণত। আগামীকাল নতুন বছরের প্রথম ছবি হিসেবে পূজা অভিনীত 'শান' মুক্তির কথা থাকলেও করোনার কারণে তা পিছিয়ে গেছে। এম রহিমের পরিচালনায় পুলিশি অ্যাকশন থ্রিলার গল্পের এই ছবিতে পূজার নায়ক সিয়াম। নির্মাণের শুরু থেকেই আলোচনায় ছবিটি। বিগ বাজেটের এই ছবিটি নির্মিত হয়েছে সত্য ঘটনা অবলম্বনে। প্রায় তিন বছর পর নতুন ছবি মুক্তি উপলক্ষে গত কয়েক দিন পূজার ব্যস্ত সময় কেটেছে। ছবির প্রচারে চরকির মতো ঘুরছেন এই নায়িকা। ঢাকার বেশ কয়েকটি দেয়ালে লাগিয়েছেন ছবির পোস্টার, প্রায় প্রতিদিনই কোনো না কোনো গণমাধ্যমের শোতে হাজির হচ্ছেন। সবকিছুই যেন থমকে গেল ছবি মুক্তির তারিখ পেছানোয়। এরই মধ্যে ইউটিউব ও ফেসবুকে প্রকাশিত হয়েছে 'শান' ছবির ট্রেলার। সেটা দেখে বেশ প্রশংসা করেছেন দর্শক। পূজাকে দেখা গেছে ছবির 'ও দয়াল' গানে।  তিনি বলেন, 'গানটি আমার পরিচিত যারা দেখেছেন, তারা প্রশংসা করেছেন। এতেই আমি সন্তুষ্ট।'

গত মঙ্গলবার এসেছিলেন সমকাল কার্যালয়ে। জানালেন, ছবিটি দর্শকদের সঙ্গে হলে বসে দেখার জন্য তিনিও অপেক্ষা করছেন। ছবিটি দেখার সময় দর্শক-প্রতিক্রিয়া কেমন হয়, সেটাও কাছ থেকেই দেখতে চাচ্ছেন 'পোড়ামন টু'খ্যাত এ নায়িকা। তবে তার সেই অপেক্ষা আরও দীর্ঘ হলো। 'শান' ছবিতে রিয়া চরিত্রে দেখা যাবে পূজাকে। মেয়েটি যেমন ইনোসেন্ট, তেমনি চঞ্চল। পূজার ভাষায়, 'প্রেম আমার-টু', 'পোড়ামন-টু', ও 'দহন' ছবিতে যে পূজাকে দর্শকরা দেখেছেন, নতুন এই ছবির রিয়া চরিত্রের সঙ্গে সেগুলোর কোনো মিল নেই। বলতে পারেন শুধু আমার সহশিল্পীর মিল ছাড়া আর কোনো কিছুরই মিল নেই। এখন পর্যন্ত এডিটিং, ডাবিংয়ে যারা ছবিটি দেখেছেন, তাদের সবাই রিয়াকে নিয়ে দারুণ প্রশংসা করেছেন। ফলে বলা যেতে পারে আমার অভিনীত রিয়া চরিত্রের প্রেমে পড়ে যেতে পারেন দর্শক।

পর্দায় রিয়া চরিত্রের প্রেমে পড়ে যাবে দর্শক- এমন কথার সূত্র ধরেই তার কাছে জানতে চাওয়া হয় বাস্তবের রিয়া ওরফে পূজা এখন কার সঙ্গে প্রেম করছেন? এমন প্রশ্নে মুচকি হাসেন পূজা। মুখে না বললেও চোখে তখন কিছু একটা লুকাচ্ছেন বলেই মনে হলো। যাই হোক মুচকি হেসে একটু কৌশলী হয়ে বললেন, 'সিনেমার বাইরে আমার কোনো প্রেম নেই। আর আমার এখন যা বয়স, এই বয়সে প্রেমে পড়তেও চাই না। আরও কিছুদিন যাক, তখন না হয় বিষয়টি নিয়ে ভাবব। আপাতত আমার সব প্রেম আর ভালোবাসা যাই বলুন না কেন তা চলচ্চিত্র।'


পূজা যখন ক্লাস এইটের ছাত্রী ছিলেন, সেই সময় একজনকে তার দারুণ লাগত। তবে সেটাকে তিনি প্রেম বলতে চান না। বলতে চান কিশোরী বয়সের পাগলামো। কারণ, সেই সময় প্রেম কী তা বুঝতেও পারেননি। এরপর যখন পূজা বড় হতে থাকে, তখন সেই ভালোলাগার মানুষটি ধীরে ধীরে ফিকে হয়ে যায়। পূজা এখন পুরোদমের অভিনেত্রী। তাকে নিয়ে ভক্তরা স্বপ্টম্ন দেখেন, কল্পনা করেন, ভালোবাসেন। তাই পূজাকে প্রেমবিষয়ক প্রশ্নে খুব কৌশলী হয়ে উত্তর দিতে হয় কিংবা কথা বলতে হয়। তারপরও পূজার প্রেম নিয়ে চলে নানা গুঞ্জন। পূজার সঙ্গে সিয়াম আহমেদের পর পর বেশ কয়েকটি সিনেমা ব্যবসা সফল হওয়ায় শোবিজে ছড়িয়ে যায়, তারা প্রেম করছেন।

বিষয়টি নিয়ে পূজা বলেন, গুজব তো গুজবই। তবে সিয়াম আহমেদের সঙ্গে আমার বন্ধুত্ব দারুন। তার সঙ্গে কাজের বোঝাপড়াটাও চমৎকার।

পূজা এরই মধ্যে শেষ করেছেন উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। কিছুদিন পরে প্রকাশ হবে পরীক্ষার ফল। এরপর ভর্তি হবেন অনার্সে। দুই বছরের কলেজজীবন কেমন কাটল তার। কলেজে বন্ধুরা তাকে কীভাবে নিয়েছে? শিক্ষকদের সঙ্গেও-বা তার সম্পর্ক কেমন? নায়িকা হওয়াতে কতটা কী সুবিধা পান তিনি। পূজার বেলায় এমন প্রশ্ন দর্শকদের মনে আসে। এমন প্রশ্নের বিপরীতে পূজা বলেন, 'কলেজের দুই বছর খুব একটা ভালো যায়নি বলা যায়। কারণ, করোনার কারণেই দুই বছর স্কুল-কলেজ বন্ধই ছিল। এর মধ্যেও যখন কলেজে গিয়েছি, নতুন বন্ধু পেয়েছি, শোবিজের বাইরেও কিন্তু আমাদের অন্য আরেকটা জীবন আছে, সেটা অতি সাধারণ জীবন। কলেজের বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে সেখানে অতি সাধারণ হয়েই মিশে যাই। স্কুল-কলেজের স্যারদের কাছে তো সবাই সমান। সে যত বড় তারকাই হোন না কেন। তাদের কাছে সাধারণ একজন ছাত্রী। তবে কলেজের সময়টা দারুণ কেটেছে। বেশ কিছু ভালো বন্ধুও পেয়েছি।'

শোবিজে কাছের বন্ধু পাননি? তার উত্তর, 'বিনোদন অঙ্গনে অনেক বন্ধুই আছে। বেস্ট ফ্রেন্ড বলতে যা বোঝায় সেটা নেই। এখানে আসলে তেমন করে বেস্ট ফ্রেন্ড হয়ও না।' তবে বাস্তব জীবনে পূজার সবচেয়ে কাছের বন্ধু তার মা। আছেন বাবাও। তার প্রতি মা-বাবার অগাধ আস্থা ও বিশ্বাস আছে বলেও জানালেন পূজা। তিনি বলেন, 'ভালো-মন্দ বিবেচনা ও মূল্যবোধের শিক্ষাটা মা-বাবা দিয়েছেন। ছোটবেলা থেকে আমি বিনোদন অঙ্গনে যেহেতু কাজ করছি, তাই আমাকে অন্য সব বন্ধুর চেয়ে আলাদা হয়ে বেড়ে উঠতে হয়েছে। পড়াশোনা ও বিনোদন অঙ্গনের কাজ সমন্বয় করা এবং আত্মবিশ্বাস নিয়ে পথচলা তাদের কাছ থেকেই শিখেছি। আমাকে তো তারাই তৈরি করেছেন, তাই তারা আমার প্রতি খুবই কনফিডেন্ট। তাই তো যেকোনো নেতিবাচক বিষয় আমার সামনে এলে তাদের জানাই। সুন্দর পরামর্শ দিয়ে তারা আমাকে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার পরামর্শ ও উৎসাহ দেন।'


গেল বছর পূজা চেরী ঢাকাই ছবির শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের বিপরীতে 'গলুই' ছবিতে অভিনয় করেছেন। শাকিবের বিপরীতে অভিনয় করাটা নিজের ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা পাওয়া হিসেবেই দেখছেন পূজা। তিনি বলেন, 'অবশ্যই এত বড় তারকার সঙ্গে কাজ করলে বাড়তি এক অভিজ্ঞতা যোগ হয়। ছবির গল্পটাও অসাধারণ। অন্যদিকে শাকিব খানের ভক্ত-দর্শকের সংখ্যাও অগণিত। তাদের কাছেও আমার নিজেকে পৌঁছানোরও একটা ব্যাপার রয়েছে। নিজে যেহেতু চলচ্চিত্রের জন্যই নিবিষ্ট থাকার চেষ্টা করছি, তাই এই ছবি দুটি আমার ক্যারিয়ারের জন্যও ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।' এদিকে শাকিবের সঙ্গে জুটি বেঁধে পূজার প্রথম কাজ শেষে ঢালিউডে গুঞ্জন, আগামীতে পরপর বেশ কয়েকটি ছবিতে জুটি হিসেবে দেখা যাবে তাদের। বিষয়টি নিয়ে পূজা বলেন, ''এ ধরনের কোনো কথা আমার সঙ্গে কারও হয়নি। 'গলুই' ছবির পর শাকিব খানের সঙ্গে নতুন কোনো ছবির প্রস্তাব এখনও পাইনি।''

পূজা চেরি নিজেকে সিনেমার নায়িকা হিসেবে ইমেজটা ধরে রাখতে চান। এজন্য এর বাইরে অন্য কোনো প্ল্যাটফর্মে খুব একটা দেখতে চান না তিনি। তবে ওটিটির যুগে ওয়েব সিরিজের কাজের অফারে পূজা কী করবেন এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, 'না এখন তো অনেক প্রতিষ্ঠিত চিত্রতারকাই কাজ করছেন ওয়েব সিরিজে। আসলে গল্প আর এর প্রোডাকশনটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। নির্মাণের টিম আর গল্প ভালো হলে আমি মনে করি তা এখন সিনেমার মতোই মূল্যায়ন করে মানুষ। নাচ, গানের পাশাপাশি মার্শাল আর্ট শেখা পূজা অভিনয়ের নৈবেদ্য সাজিয়েছেন।
তার স্বপ্ন দেশের সেরা অভিনেত্রী হওয়ার পাশাপাশি, সবার প্রিয় মানুষ হয়ে বেঁচে থাকার।