আগামী ২৮ জানুয়ারি  এফডিসিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২১-২২ মেয়াদে দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এফডিসিতে প্রতিদিন বসছে তারকাদের মিলন মেলা।  সকাল থেকে রাত অব্দি তারকা অবস্থান করছেন  সিনেমাপাড়ায়, সহকর্মী ভোটাদের কাছে চাইছেন ভোট, মেতে উঠছেন আড্ডায়।

নির্বাচন উপলক্ষে এফডিসিতে তারকাদের উপস্থিতি থাকায় এখানে বেড়েছে বহিরাগতদের প্রবেশে। সরেজমিনে শনিবার বিকেলে কয়েক শ’ বহিরাগত দেখা গেল এফডিসিতে। 

এদিকে কেপিআইভুক্ত এলাকায় এতো বহিরাগতদের প্রবেশে করোনা ছড়ানোসহ নানা আতঙ্কে ভোগছেন শিল্পীরা। তারা বলছেন, এফডিসিতে অপরিচিত মানুষের আনাগোনা বেড়েছে। এতে করে তারা আতঙ্কে রয়েছেন।

এছাড়াও নির্বাচন উপলক্ষ্যে বহিরাগত লোকজন এনে ভোটারদের প্রভাবিত এবং আতঙ্ক সৃষ্টির অভিযোগ করেছেন অনেকেই। 


বিষয়টি নিয়ে এবারের মিশা সওদাগর-জায়েদ খান প্যানেলের সাধারণ সম্পাদকপ্রার্থী জায়েদ খান বলেন, ‘শিল্পীদরে নির্বাচনে শিল্পীরা আসবে। এছাড়াও এফডিসি সংশ্লিষ্টরা কাজের জন্য এখানে আসবে। কিন্তু আসছে শত শত বহিরাগত মানুষ। এখানে এতো বহিরাগতদের আনাগুনা যে আমরা শিল্পীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছি। আজ (শনিবার) আমাদের প্যানেলের দুইজন সিনিয়র শিল্পী  সূচরিতা ও অঞ্জনা আপা এফডিসিতে আসতে গিয়ে বহিরাগতদের এতো ভিড় শুনে রাস্তা থেকে গাড়ি ঘুড়িয়ে চলে গেছেন। আমরা শিল্পীরা তো বহিরাগতদের জন্য এফডিসিতে হাটতেই পারছিনা।  এ অবস্থা দূর্ঘটনা ঘটারও আভাস পাচ্ছি।’

বিষয়টি নিয়ে শিল্পী সমিতির ইলেকশন কমিশনকে মৌখিক অভিযোগওে করেছেন বলে জানিয়েছেন দুইবারের শিল্পী সমিতির এই নেতা। পাশাপাশি রোববার এফডিসির এমডি নুজহাত ইয়াসমিনের কাছে লিখিত অভিযোগ করবেন বলেও জানালেন।

এছাড়াও এফডিসিতে ইউটিউবারদের উৎপাতেও অতিষ্ঠ এই নেতা। তিনি বলেন, ‘প্রতিষ্ঠিত গণমাধ্যম ছাড়া এখানে কেনো এতো ইউটিউবার আসবে। আমরা যা বলছি, আড্ডায় মজা করে একে অপরকে যা বলছি সবই তারা ইউটিউবে দিয়ে তারকাদরে ভাবমূর্তি নষ্ট করছে। এদেরকেও প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আনা দরকার।'

একই অভিযোগ করলেন শিল্পী সমিতির এবারের নির্বাচনে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেলের সহ-সাধারণ সম্পাদকপ্রার্থী চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। তিনি বলেন, 'এফডিসিতে প্রচুর বাইরের লোক প্রবেশ করছে। এতে করে আমাদের শিল্পীদের চলাচলে সমস্যা দেখা দিচ্ছে। ভোটের প্রচারণার চেয়ে সেলফিতে বেশি সময় দিতে হয়। এতে করে আমাদের ভোটের প্রচারণায় প্রচুর সমস্যা করছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা এফডিসির এমডি মহোদয়ের কাছে গিয়েছিলাম। তাকে বিষয়টি অবগত করার পর তিনি বলেন, দেখুন  এফডিসিতে তো আমাদরে কনস্ট্রাকশনের কাজ হচ্ছে এই পরিস্থিতিতে আমাদের গেইট ওপেন রাখতে হচ্ছে। তাই সাধারণ মানুষদের প্রবেশ ঠেকানো সম্ভব হচ্ছে না।' 

সাইমন আরও বলেন, 'দিন দিন শিল্পীদের উপস্থিতি এফডিসিতে বাড়বে। এভাবে সাধারণ মানুষের প্রবেশ ঠেকানো না গেলে আমরা এফডিসিতে চলতেই পারবো না। বিষয়টি  এফডিসির এমডিকে জানালে তিনি বলেছেন এ বিষয়ে আমাদের আপাতত আর কিছুই করার নেই। '

সাধারণ মানুষের প্রবেশ ও শিল্পীদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিয়ে এফডিসির ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক  নুজহাত ইয়াসমিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গেটে নিরাপত্তার দায়িত্বে আমাদের পুলিশবাহিনী আছেন। অনেকসময় শিল্পীদের সঙ্গে দেখা করার কথা বলে ভিতরে প্রবেশ করে। সামনে নির্বাচন, সেজন্য আমরা দেখছি যেন বাইরের কেউ প্রবেশ করতে না পারে। আমরা চেষ্টা করছি ’