ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ও শিল্পী সমিতির সদস্য বাপ্পি চৌধুরী শিল্পী সমিতির নির্বাচন হোক চান না। তিনি চান নির্বাচন না করে সিলেকশনে শিল্পী সমিতির নেতৃত্ব ঠিক করা হোক। বাপ্পি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় আমাদের শিল্পী সমিতির নির্বাচন হওয়ার দরকার নেই। কারণ নির্বাচন নিয়ে শিল্পীদের মধ্যে ক্ল্যাশ তৈরি হয়।’ 

২৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন। এই নির্বাচনকে ঘিরে সরগরম এফডিসি। তারকাদের আনাগোনায় মুখর সিনেমার আঁতুড়ঘর হিসেবে পরিচিত এ আঙিনা। পক্ষে-বিপক্ষে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ, তর্ক-বির্তকও চলছে সমানতালে।  

নির্বাচনকে ঘিরে তারকাদের কাদাছোড়াছুড়ি পছন্দ নায়ক বাপ্পির। তিনি বলেন,  ‘আমাদের শিল্পী সমিতির নির্বাচন আমি গত সাত বছর ধরে দেখছি।  নির্বাচনের সময়টা এবং পরবর্তী দুই বছর এফডিসিতে শুধু ক্ল্যাশ হয়। সে ভালো না সে ভালো আবার সে খারাপ সে ভালো। এগুলো নিয়েই আমাদের দুটি বছর চলে যায়।  তাই আমি মনে করি  সমিতি থাকুক। এই সমিতিতে আমাদের  যারা সিনিয়র আছেন তারা সবাই একসঙ্গে বসবেন, ওয়ার্ক করবেন এরপর সবার পরামর্শ নিয়ে দুই বছরের জন্য নেতা সিলেকশন করে দেবেন। যারা পরবর্তী দুই বছর সমিতির নেতৃত্বে থাকবে।  তাহলে আর ভোটের জন্য এমন ক্লাশ হবে না। সবাই একসঙ্গে বসবো, চা খাবো, আড্ডা দেবো।’

নিজে কখনো শিল্পী সমিতির নির্বাচনে জড়াতে চান না বাপ্পি। বিষয়টি নিয়ে তিনি বলেন, আমি আট বছর ধরে ফিল্মে আছি। আমি কখনো সমিতির নির্বাচন করিনি। আমার ইচ্ছেও নেই।  নির্বাচন করার। তবে নির্বাচনের দিন আমি ভোট দিতে সকাল ১০টায়  যাই। ভোট দেওয়ার পর বিকেল চারটা পর্যন্ত  সবার সঙ্গে ইচ্ছে মতো আড্ডা দেই, মাস্তি করি।  কারণ এই দিনটায় সবাইকে একসঙ্গে পাই। বেশ আনন্দ লাগে। এমন দিনটা আসলে আমরা সবসময় চাই। নির্বাচনের পর যখন একটা প্যানেল পরাজিত হয় তখন তাদের মাঝে আর আনন্দ থাকে না। আনন্দটাও ভাগাভাগি হয়ে যায়। আমরা আসলে আনন্দ একপক্ষের হয়ে যাক এটা চাই না। আমি সবাইকে নিয়ে থাকতে চাই।’ 

ভিডিও: