বধূসাজে পালকিতে চড়ে এলেন পরীমণি। আর সেই পালকি কাঁধে এলেন বর শরিফুল রাজ। ব্যাকগ্রাউন্ডে বাজছিল বিয়ের বাদ্য। যেন পুরোপুরি বিয়ের আমেজ। তাদের সঙ্গে বরযাত্রী ও কনেযাত্রী হয়ে এলেন নির্মাতা গিয়াসউদ্দিন সেলিমসহ অনেকেই।

বুধবার রাজধানীর একশ ফিট এলাকার শেফট টেবিল কোট সাইটে দেখা গেলো বিয়ের এই যজ্ঞ। কারণ এখানে পরীমণি ও শফিকুল রাজ অভিনীত গুণিন ছবির প্রিমিয়ার এবং মিট দ্য প্রেস। এই ছবির শুটিং করতে এসেই একে অপরের কাছাকাছি এসেছেন রাজ-পরী। করেছেন বিয়ে। আর এখন তো বাবা-মা হওয়ার অপেক্ষা!

গুণিন ছবিতেও বর-বধূসাজে বিয়ের দৃশ্য রয়েছে তাদের। তাই বাস্তবেই বর-বধূসাজে ছবিটির প্রিমিয়ারে হাজির হলেন তারা। আগামী ১১ মার্চ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে 'গুণিন'। মুক্তির আগে তাই প্রচারণার অংশ হিসেবে আজকের এই আয়োজন।

পরীমণি ভাষ্য, ‘গুণিনের মাধ্যমেই আমাদের পরিচয়। এই ছবিতেও বিয়ে করি আমরা। তাই আজকে এই সাজ। ধরতে পারেন এটা আমাদের বিয়ে-পরবর্তী সংবর্ধনার আয়োজন।’

শরিফুল রাজ বলেন, ‘বলতে গেলে তেমন আয়োজন করে তো আমাদের বিয়ে করা হয়নি। আজ সেটা হলো গুণিন ছবির মাধ্যমেই। কিন্তু পরীকে পেয়েছি। সেই গুণিনই আমাদের বিয়ের আয়োজন করল আবার। খুব ভালো লাগছে। আশা করি ছবিটি সবাই হলে গিয়ে দেখবেন।’

গুণিন পরিচালনা করেছেন গিয়াসউদ্দিন সেলিম। সিনেমা হলে রিলিজের পর এটা ওটিটি প্লাটফর্ম চরকিতেও দেখা যাবে। এই ছবির গল্পকে পরিচালক অন্তঃজ শ্রেণির গল্প বলে আখ্যায়িত করলেন।

তিনি বলেন, ‘হাসান আজিজুল হকের একটি ছোট গল্প এটি। যা পড়ে আমি সিনেমার চিত্রনাট্য করি। এটার মূল অনেক কিছু বিষয় আছে, আমাদের আদিম গ্রাম, সমাজ, আমাদের মানুষের যে মনস্তত্ব-এই পূর্ববঙ্গের, মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি, প্রেম-প্রতারণা এবং কিছুটা রহস্যও পাওয়া যাবে।’

ছবিটির নামভূমিকায় অভিনয় করেছেন আজাদ আবুল কালাম। সেইসঙ্গে দিলারা জামান, ইরেশ যাকের, মোস্তফা মন্‌ওয়ার, শিল্পী সরকার অপু, ঝুনা চৌধুরীসহ আরও অনেককেই দেখা যাবে এই সিনেমায়।