চার বছরের দাম্পত্যে ফাটল ধরার পর ২০২১ সালের ২ অক্টোবর বিচ্ছেদের কথা জানিয়েছিলেন সামান্থা রুথ প্রভু। দক্ষিণী সুপারস্টার নার্গাজুনের ছেলে অভিনেতা নাগা চৈতন্যের সঙ্গে তার পর্দার প্রেম এবং বাস্তব প্রেম নিয়ে মাতামাতি ছিল দর্শকদের মধ্যে। কিন্তু বনিবনার অভাবে ছাদ আলাদা হয়ে যায় তাদের। এর পরে বিচ্ছেদের কারণ হিসেবে বিভিন্ন কারণ শোনা যায়।

আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, খোলামেলা দৃশ্যে সামান্থার অভিনয় নিয়ে নাগার সঙ্গে আপত্তি জানিয়েছিলেন তার মা-বাবাও। পুত্রবধূকে নাকি ‘সাহসী’ ভূমিকায় পর্দায় দেখতে আপত্তি ছিল তাদের। তবে বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়ে কথা হলেও নিজের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ নিয়ে কোনও কথা বলেননি নাগার্জুন।

তার পরে সম্প্রতি শোনা গেল, নাগার সঙ্গে বিয়েতে যে শাড়িটি সামান্থা পরেছিলেন, তা স্বামীর কাছে পাঠিয়ে দিলেন। তেলুগু ইন্ডাস্ট্রির খবর, সাদা রঙের সেণই দক্ষিণী শাড়ি আসলে নাগার ঠাকুমার। তাই সেই শাড়ি নিজের কাছে রাখতে চাননি ‘ফ্যামিলি ম্যান ২’-এর নায়িকা। তা ছাড়া তিনি নাকি নাগা বা আক্কিনেনি পরিবারের কোনও জিনিসই আর নিজের কাছে রাখতে চান না।

এর আগে অক্টোবর মাসে সামান্থা নেটমাধ্যমে লিখেছিলেন, ‘অনেক আলোচনা ও চিন্তাভাবনা করে সিদ্ধান্ত নিয়ে আমরা স্বামী-স্ত্রী দু’জন আলাদা পথ খুঁজে নিয়েছি। আমরা ভাগ্যবান যে এক দশকের বেশি সময় ধরে আমাদের মধ্যে যে বন্ধুত্ব ছিল, যা আমাদের সম্পর্কের মূল ভিত্তি, আমরা বিশ্বাস করি, সব সময় আমাদের মধ্যে সেই বন্ধন থাকবে।’