‘অনেক কষ্টের খেলা জিমন্যাস্টিক। বেশ সাবধানে খেলতে হয়। একটু এদিক সেদিক হলেই ছিঁড়ে যেতে পারে হাত-পায়ের রগ।  হতে পারে মৃত্যুও। শরীর ফ্লেক্সিবল না হলে এই খেলা সম্ভব নয়। সবচেয়ে বড় কথা, সারা বছরই অনুশীলনের মধ্যে থাকতে হয়।’ বলছিলেন পূজা চেরি। 

ভাবছেন ঢাকাই ছবির এই নায়িকা হঠাৎ করে জিমন্যাস্টিক নিয়ে কথা বলছেন কেনো? কারণ মাসুদ রানা ছবিতে একজন জিমন্যাস্টের ভূমিকায় শুটিং করছেন তিনি। তার চরিত্রের নাম সোহানা। চরিত্রটিকে ফুটিয়ে তুলতে পূজার কসরতের শেষ নেই। 

সম্প্রতি সেই কসরতের এক ঝলক দেখালেন পূজা। শুটিংকালীন কয়েকটি ছবি এসে সমকালের কাছে। সেই ছবির রহস্য জানতেই পূজার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে পূজা জানালেন তার জিমন্যাস্টিক হওয়ার গল্প। 

পূজা জানালেন, চরিত্রটিকে ফুটিয়ে তুলতে বিকেএসপিতে খেলছেন তিনি। ৩ মার্চ দিনভর চলে তার খেলার দৃশ্যধারণ। এ দিন পূজার ‘ফ্রন্ট টার্ন স্প্লিট’ ও ‘ব্যাক সামারসল্ট ব্যাক টার্ন’–এর দৃশ্য ধারণ করা হয়। 

মাসুদ রানা' ছবিটি পরিচালনা করছেন সৈকত নাসির। পূজার এই সোহানা হওয়ার চেষ্টা নিয়ে তিনি বলেন, পূজা দারুণ করছে।  শুটিংয়ের সময় বিকেএসপিতে বেশ কয়েকজন জিমন্যাস্টিক প্রশিক্ষক ছিলেন। পূজার চরিত্রটি নিখুঁতভাবে ফুটিয়ে তুলতে বেশ সহযোগিতা করেছেন তাঁরা। প্রশিক্ষকেরাও বেশ অবাক হয়েছেন পূজার কসরত রপ্ত করা দেখে।’

মাসুদ রানা' ছবির শুটিং এখন শেষ পর্যায়ে বলে জানালেন পরিচালক। তার ভাষ্য, শুটিং প্রায় শেষ।  ইন্দোনেশিয়ার বালিতে একটি মারপিটের দৃশ্য ধারণের দৃশ্য বাকি আছে। এই দৃশ্যটি করলেই শেষ হবে মাসুদ রানা। 

কাজী আনোয়ার হোসেনের ‘মাসুদ রানা’ সিরিজ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন আবদুল আজিজ। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন নবাগত রাসেল রানা।    আগামী ডিসেম্বরে ছবিটি মুক্তি সম্ভাবনা রয়েছে।