জামালপুরের ৩ উপজেলায় 'গলুই' সিনেমার প্রদর্শনী বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। এ ছাড়াও সোমবার থেকে জামালপুর সদর ও মাদারগঞ্জ উপজেলায় সিনেমাটির প্রদর্শনী বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন।

স্থানীয় প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তে দর্শক ও সিনেমা-সংশ্লিষ্টদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। সিনেমার প্রদর্শনী বন্ধ ঘোষণা প্রত্যাহার করার দাবি জানিয়েছেন দর্শক, নাট্যকর্মী ও সিনেমা-সংশ্লিষ্টরা।

জামালপুরের জেলা প্রশাসক মুর্শেদা জামান বলেন, 'প্রশাসনিকভাবে আমরা কোনো প্রেক্ষাগৃহের প্রদর্শনী বন্ধ করিনি। স্বল্প সময়ের জন্য আমরা ওই অডিটোরিয়ামগুলোতে সিনেমা প্রদর্শনীর অনুমতি দিয়েছিলাম। বাণিজ্যিক সিনেমা সরকারি যে কোনো জায়গায় চালানো যায় না। সিনেমাটি সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত, জামালপুরে শুটিং, জেলার মানুষের আবেগের বিষয়টি মাথায় রেখে আমরা অনুমতি দিয়েছিলাম। কিন্তু তা বেশি সময়ের জন্য দিতে পারি না। আমাদের একটা নিয়মের মধ্যে থাকতে হয়।'

'গলুই' সিনেমার নির্মাতা এসএ হক অলিক অভিযোগ করে বলেন, 'উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে ইসলামপুরে শনিবার থেকে গলুই সিনেমা বন্ধ রয়েছে। এ ছাড়া আগামীকাল থেকে জামালপুর সদরের মির্জা আজম অডিটোরিয়ামে এবং মাদারগঞ্জে গলুই সিনেমা চালানো বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসন ১৯১৮ সালের আইন অনুযায়ী সিনেমা হল ব্যতীত অন্য কোনো জায়গায় সিনেমা চালানো যাবে না বলে শো বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। এমন নিয়মে ঢালিউড সিনেমার ক্ষতি হবে, আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হবো।'

জামালপুরের আশরাফুর রহমান নামে এক দর্শক বলেন, জামালপুরের পরিচালকের বানানো সিনেমা, জামালপুরেই শুটিং হয়েছে। সিনেমাটি আমরা দেখতে পাব না এটি খুবই কষ্টকর।