বরাবরই বলিউড ইন্ডাষ্ট্রিতে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ উঠে করণ জোহরের প্রতি। স্টার কিডদের ক্যারিয়ার নিজের হাতে গড়ে দেন তিনি। তাই  হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অকারণে নেপোটিজমের জন্য আক্রমণ করা হয় করণ জোহরকে।  কিন্তু করণের প্রতি এই অভিযোগ মিথ্যা বললেন অভিনেত্রী কিয়ারা আদভানী। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ‘শেরশাহ’গার্ল বলেন, ‘যখন কেউ পাশে ছিল না, করণ আমাকে সাপোর্ট করেছে।'

শুধু করণ জোহর নন, ফ্যাশন ডিজাইনার মণীশ মালহোত্রার প্রশংসাতে পঞ্চমুখ নায়িকা। তিনি বলেন, ‘এই মানুষগুলো নিজেরা ব্যাপক সফল, কিন্তু নতুনদের সাহায্যে এগিয়ে আসে সংকোচহীনভাবে'।

ইন্ডাস্ট্রিতে তখন কিয়ারা একেবারে নতুন মুখ। পরিচালক-প্রযোজকদের কাছে কাজের সুযোগের জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এমনকি যে এজেন্সির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ছিলেন কিয়ারা তারাও করণের প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে কিয়ারার কোনও রকম যোগাযোগ করাতে পারছে না। সেই হতাশাজনক পরিস্থিতিতে আচমকা করণের সঙ্গে সাক্ষাৎ কিয়ারার। এরপর ২০১৮ সালে করণ জোহের ‘লাস্ট স্টোরিজ’-এ অভিনয়ের সুযোগ পান কিয়ারা। তাই ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ পরিচালকের প্রতি কৃতজ্ঞতার শেষ নেই কিয়ারার।

একটা সময় ফ্যাশন দুনিয়ায় নামী-দামী ডিজাইনারাও ফিরিয়ে দিয়েছিলেন কিয়ারাকে। কারণ স্টার নায়িকাদের নিয়েই সবাই কাজ করতে চায়। কিন্তু মণীশ মালহোত্রার মতো ডিজাইনারকে পাশে পেয়েছিলেন অভিনেত্রী। কিয়ারা বলেন, ‘আমি জানি নেপোটিজমের জন্য করণকে অনেক কটূকথা শুনতে হয়। কিন্তু ও যখন আমাকে সুযোগ দিয়েছিল আমাকে কেউ চিনত না, আর কেউ আমার নাম প্রস্তাব করেনি ওর কাছে। যারা ওকে নিয়ে এসব বলে, তারা ভুল বলে।' কিয়ারার মতে দিনের শেষে ছবি একটা ‘ব্যবসা’, সেটা মাথায় রাখা উচিত সবার।

মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে কিয়ারার ‘ভুল ভুলাইয়া ২’, এই ছবিতে কার্তিক আরিয়ানের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করে নেবেন কিয়ারা।