পল্লবীর অনুপস্থিতিতে একাধিকবার গরফার ফ্ল্যাটে এসেছিলেন ঐন্দ্রিলা। এমনই দাবি করলেন ভারতীয় বাংলা টেলিভিশনের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পল্লবী দের গৃহকর্মী। 

গত রোববার সকাল ৯টা ৫০ মিনিটে গরফার ফ্ল্যাটে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় পল্লবীর মৃতদেহ। তার গলায় জড়ানো ছিল বিছানার চাদর। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গ্রেফতার করা হয় পল্লবীর লিভ-ইন সঙ্গী সাগ্নিক চক্রবর্তীকে। তারপরই এই চাঞ্চল্যকর দাবি উঠে এলো পল্লবীর পরিচারিকা সেলিমা সর্দারের কাছ থেকে।  

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজ বুধবার সকালে গরফা থানায় উপস্থিত হন সেলিমা। তিনি দাবি করেছেন, পল্লবীর অনুপস্থিতিতে সাগ্নিকের সঙ্গে দেখা করতে একাধিকবার ফ্ল্যাটে এসেছিলেন বান্ধবী ঐন্দ্রিলা সরকার। সাগ্নিক এবং ঐন্দ্রিলা ঘনিষ্ঠতা তার ভালো লাগেনি বলেও সেলিমা জানিয়েছেন। তার আরও দাবি, ঈদের দিনে ওই ফ্ল্যাটে এসেছিলেন ঐন্দ্রিলা। গত শুক্র এবং শনিবার পার্টি করতে ওই ফ্ল্যাটটিতে আসেন সাগ্নিকের বন্ধুরা। সেখানেও উপস্থিত ছিলেন ঐন্দ্রিলা।

সেলিমা পুলিশকে আরও জানিয়েছেন, ঘটনার দিন অর্থাৎ গত রোববার তাকে নিয়ে সাঁতরাগাছির বাড়িতে যাওয়ার কথা ছিল পল্লবীর। কিন্তু সকালে সেলিমা পল্লবীকে জানান, শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি যেতে পারবেন না। এ নিয়ে পল্লবীর সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয় বলেও সেলিমা জানিয়েছেন। এরপর দুপুরবেলায় তিনি পল্লবীর মৃত্যুর খবর পান।

সাগ্নিক এবং পল্লবীর মধ্যে প্রতিদিন ঝগড়া এবং কথা-কাটাকাটি হতো বলেও দাবি করেছেন সেলিমা।