শুক্রবার দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেল গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত বহুল প্রতীক্ষিত ছবি ‘পাপ পুণ্য’।  ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত তারকাবহুল এই ছবিটি একই সঙ্গে উত্তর আমেরিকা ও কানাডাার ১১২টি হলেও মুক্তি পাচ্ছে একযুগে।

মুক্তির প্রথম দিনের প্রথম শো স্টার সিনেপ্লেক্সের বসুন্ধরা শাখাতে দর্শকদের সঙ্গে উপভোগ করলেন  আফসানা মিমি, ফজলুর রহমান বাবু, চঞ্চল চৌধুরী, সিয়াম আহমেদ ও নবাগত সুমি। এ সময় গণমাধ্যমের সামনে তারা বলেন, আজ থেকে পাপ পুণ্য আর সবার। পাপ পুণ্যের ভার দর্শকদের উপর ছেড়ে  দিলাম আমরা।

দেশের কুড়িটির মতো প্রেক্ষাগৃহে ‘পাপ পুণ্য’ মুক্তি পেয়েছে ছবিটি বিশেষ করে রাজধানীর সর্বাধুনিক প্রেক্ষাগৃহগুলোতে ছবিটি মুক্তি পাওয়ায় দর্শকও বেশ আশ্বস্ত। শুক্রবার প্রথম শো দেখতেই বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহ থেকে আসছে আনন্দ সংবাদ। এমনটাই জানাচ্ছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান।

রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্স এর পাঁচটি শাখাতেই শুক্রবার থেকে চলবে ‘পাপ পুণ্য’। এছাড়া যমুনা ব্লকবাস্টার সিনেমাস, শ্যামলী, জিঞ্জিরার জয় সিনেপ্লেক্স, গাজীপুরের বর্ষা সিনেমা হল, চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিন, সুগন্ধা, ময়মনসিংহের ছায়াবাণী, খুলনার শঙ্খ, লিবার্টি, রংপুরের শাপলা, বগুড়ার মধুবন, নওগাঁ’র তাজ, ভৈরবের মধুমতি, শেরপুরের সত্যবতী এবং নারায়ণগঞ্জের সিনেস্কোপে মুক্তি পাবে ‘পাপ পুণ্য’।

এদিকে শুধু বাংলাদেশে নয়, শুক্রবার থেকে একযোগে ‘পাপ পুণ্য’ মুক্তি পাচ্ছে উত্তর আমেরিকার প্রেক্ষাগৃহ গুলোতেও। আন্তর্জাতিক পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো জানিয়েছে, শুক্রবার থেকে কানাডার ৭টি ও আমেরিকার ৮৪টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি চূড়ান্ত হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ অলিউল্লাহ সজীব বলেন, আমাদের পরিবেশনায় প্রথম সপ্তাহে উত্তর আমেরিকার ৯১ হলে মুক্তি পাচ্ছে ‘পাপ পুণ্য’। এর মাঝে কানাডায় ৭টি এবং আমেরিকায় রয়েছে ৮৪টি থিয়েটার।

তিনি বলেন, দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে (২৭ মে) কানাডার আরো একটি এবং আমেরিকার আরো ২০টি থিয়েটারে মুক্তি পাবে ‘পাপ পুণ্য’। উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশি সিনেমার ১০০ এর মাইলফলক স্পর্শ করতে যাচ্ছে ছবিটি।