চঞ্চল চৌধুরী। তারকা অভিনেতা। শুক্রবার মুক্তি পেয়েছে তাঁর অভিনীত ছবি 'পাপ পুণ্য'। গিয়াসউদ্দিন সেলিম পরিচালিত এ ছবি ও অন্যান্য বিষয়ে কথা হলো তাঁর সঙ্গে-

'মনপুরা' সিনেমার ১২ বছর পর গিয়াসউদ্দিন সেলিমের 'পাপ পুণ্য' ছবিতে অভিনয় করলেন। ছবিটি নিয়ে কেমন আশাবাদী?

ছবিটি নিয়ে শতভাগ আশাবাদী। গিয়াসউদ্দিন সেলিমের সঙ্গে আমার ১২ বছর পর কোনো ছবি মুক্তি পেল। এ নিয়ে দর্শকের আগ্রহ রয়েছে। গল্প, নিজের অভিনয় দেখার পর যদি আমার পছন্দ না হয়, তাহলে ফোন বন্ধ রাখব; মিডিয়ার সামনে কথা বলব না- এমন ভাবনা নিয়ে দর্শক হিসেবে হলে গিয়েছিলাম। ছবির প্রথম প্রদর্শনী দেখার পর সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছি। ছবিটি দেখে আমিও পুরোপুরি সন্তুষ্ট। ক্যারিয়ারে দর্শককে কখনোই হলে এনে হতাশ করিনি। কখনও দর্শক ঠকাইনি। আমি মনে করি, সারা পৃথিবীর বাঙালি এই ছবি দেখবেন। কারও সময় ও অর্থ বৃথা যাবে না।

'পাপ পুণ্য' ছবিতে খোরশেদ চেয়ারম্যানের চরিত্রে অভিনয় করছেন আপনি। এখন জানতে চাই, চঞ্চল থেকে খোরশেদ হয়ে ওঠার গল্পটা।

যে কোনো চরিত্রে অভিনয় করতে গেলে একটা যাত্রার মধ্য দিয়ে যেতে হয়। সিনেমা বা নাটকে যখন একটি ভালো চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পাই, তখন নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করি। ছবিতে অভিনয়ের সময় আমার খাওয়া, গোসল, ঘুম একপাশে এবং কাজ ছিল অন্যপাশে। যেহেতু এ ধরনের চরিত্রে আগে কাজ করিনি, তাই অনেক চ্যালেঞ্জিং ছিল। নির্মাতা চরিত্রটি যেভাবে লিখেছেন বা তিনি যেভাবে চরিত্রটি দেখতে চান, সেভাবে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা ছিল। ফলে নির্মাতার সঙ্গে নিয়মিত আলোচনার মাধ্যমে চরিত্রটি নিয়ে প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। সত্যি বলতে কি, যে কোনো চরিত্রে ভালো অভিনয় করতে গেলে পরিশ্রম করতে হয়। পরিশ্রম ছাড়া ভালো কিছু হয় না।

এবারই প্রথম দেশের কোনো সিনেমা একসঙ্গে কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের দর্শক দেখছেন। বিষয়টি কেমন লাগছে?

এটা আমাদের দেশের সিনেমার জন্য দারুণ এক সংবাদ। বিষয়টি গর্বের ও আনন্দের। এর আগেও আমার অভিনীত 'আয়নাবাজি' ও 'দেবী' দেশের বাইরে মুক্তি পেয়েছিল; কিন্তু তা একসঙ্গে বেশি সংখ্যক হলে মুক্তি পায়নি।

এবার অন্য প্রসঙ্গে আসা যাক। সিনেমার পাশাপাশি ওটিটিতেও আপনি সরব। এ মাধ্যমের ভবিষ্যৎ কেমন?

অনলাইন প্ল্যাটফর্ম সময়ের দাবি। মানুষ ঘরে বসে ছবি দেখতে চায়। করোনাকালে এ প্রবণতা আরও বেড়েছে। সে হিসেবে ওয়েবের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল। আগামীতে বড় জায়গা তৈরি হবে। ভালো কনটেন্ট দিয়ে দর্শক ধরে রাখতে হবে। এটাই এখন চ্যালেঞ্জ।

অনেক দিন মঞ্চে অনুপস্থিত...

সিনেমা, টিভি নাটক, অনলাইন মাধ্যম আর ব্যক্তিগত কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় মঞ্চের জন্য আলাদা সময় বের করতে পারছি না। ব্যস্ততা কমলে নতুন কাজ করব। সবই নির্ভর করছে সময়ের ওপর।

ঈদের কাজের কী খবর?

এখন 'পাপ পুণ্য' নিয়েই ভাবছি। বিভিন্ন হলে হলে ঘুরছি। যে জন্য কোরবানির ঈদের কাজ এখনও পুরোদমে শুরু করতে পারিনি।