উত্তর কোরিয়া দেশটির নেতা কিম জং-উনের নির্দেশে যে কোনো সময় পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালাতে পারে বলে সতর্ক করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের একটি সূত্র।

মঙ্গলবার ইয়ুনহাপ নিউজ এজেন্সি দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের ওই সূত্রের বরাতে এ তথ্য জানায়। খবর তাসের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই সূত্র জানায়, কিম জং-উনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বর্তমানে উত্তর কোরিয়া যে কোনো সময় পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুত রয়েছে।

এদিকে এ পরীক্ষার পাল্টা কী ব্যবস্থা নেওয়া যায় সে বিষয়ে সিউল ও ওয়াশিংটন আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

এর আগে ৬ জুন আন্তর্জাতিক অ্যাটমিক এনার্জি এজেন্সির (আইএইএ) ডিরেক্টর জেনারেল রাফায়েল গ্রোসি জানিয়েছিলেন, উত্তর কোরিয়া পুঙ্গি-রি পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর জন্য প্রস্তুত হতে পারে। 

উত্তর কোরিয়া ইতোমধ্যে ছয়বার পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। সর্বশেষ পরীক্ষা চালিয়েছিল ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে।

কার হাতে কত পারমাণবিক অস্ত্র

বিশ্বের প্রায় ৯০ শতাংশ পারমাণবিক অস্ত্রের মালিক রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র। এর মধ্যে বেশি অস্ত্রের মালিক রাশিয়া। তার অস্ত্রাগারে রয়েছে পাঁচ হাজার ৯৭৭টি অস্ত্র। যা যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্রাগারে থাকা অস্ত্রের চেয়ে ৫৫০টি বেশি। 

এ ছাড়া চীনের কাছে ৩৫০, ফ্রান্সের কাছে ২৯০, ব্রিটেনের কাছে ২২৫, পাকিস্তানের কাছে ১৬৫, ভারতের কাছে ১৬০ ও ইসরায়েলের কাছে রয়েছে ৯০টি পারমাণবিক বোমা।

এসব দেশগুলোর মধ্যে ইসরায়েল একমাত্র দেশ যারা পরমাণু অস্ত্র থাকার কথা আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করে না।

এসআইপিআরআই প্রথমবারের মতো জানিয়েছে, কিম জং উনের দেশ উত্তর কোরিয়া এখন ২০টি পরমাণু ওয়ারহেডের মালিক। ধারণা করা হয়, ৫০টির মতো ওয়ারহেড তৈরির রসদ আছে দেশটির।

সংস্থাটি বলছে, ২০২১ সালের জানুয়ারিতে ১৩ হাজার ৮০টি পরমাণু ওয়ারহ্যাড ছিল। যা ২০২২ সালের জানুয়ারিতে কমে হয়েছে ১২ হাজার ৭০৫টি। আনুমানিক তিন হাজার ৭৩২টি ওয়ারহ্যাড মোতায়েন করে রাখা আছে, যার মধ্যে দুই হাজারের মতো রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের।