গেল বছরের জুনে গালাগালি, কিশোর গ্যাঙ, পুলিশের ব্যবহার ঠিকমতো হয়নি—এমন মতামত দিয়ে সাহস নামে একটি ছবি ‘প্রদর্শনযোগ্য নয়’ বলে মতামত দেয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড। 

চিঠি হাতে পেয়ে ছবিটির তরুণ নির্মাতা সাজ্জাদ খান সেই সময় গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘আমি সিনেমায় কিশোর গ্যাঙের বিরুদ্ধে কথা বলেছি। আমি টেকনিক্যালি পুলিশের পোশাক দেখায়নি, সাধারণ পোশাক দেখিয়েছি। তারপরও কেন তারা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বুঝতে পারছি না।

পরে একাধিক সংশোধনের পর গেল বছরের সেপ্টেম্বরে সিনেমাটি সেন্সর ছাড়পত্র পায়।

কিন্তু ছাড়পত্র পেলেও এবার জানা গেলো ছবিটি আর সিনেমা হলে প্রদর্শন হচ্ছে না। মুক্তি পাচ্ছে  বিকল্প মাধ্যম তথা ওটিটি প্লাটফর্ম চরকিতে। চরকির জনসংযোগ বিভাগ থেকে জানানো হয়েছে  ১৬ জুন রাত ৮টায় চরকিতে মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি। 

চরকি বলেছে, সেন্সর বোর্ড যে সিনেমাটিকে ‘প্রদর্শনযোগ্য নয়’ বলেছে, সেখানে গালিযুক্ত সংলাপ রয়েছে। এ ছাড়া সেন্সর পাওয়া সিনেমাটিতে তেমন কোনও পার্থক্য নেই। সে কারণে তারা আনসেন্সরড সিনেমাটি দেখানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

চরকি পাশাপাশি এও জানায়, এই আনসেন্সর কপি দেখলে  জানা যাবে কেনো আমাদের তরুণ নির্মাতারা সিনেমা নির্মাণে আগ্রহী হচ্ছে না। আবার সিনেমা বানালেও কিভাবে তাদের থামিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

পরিচালক সাজ্জাদ খানের প্রথম সিনেমা ‘সাহস’। সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন মোস্তাফিজ নুর ইমরান, নাজিয়া হক অর্ষা, খাইরুল বাসার, কুন্তল বিশ্বাস বিকু। এ ছাড়া একঝাঁক নতুন অভিনেতা অভিনয় করেছেন সিনেমাটিতে, যাঁদের বেশির ভাগই বাগেরহাটের স্থানীয়। খালিদ মাহবুব তূর্য, শাফিন সানি, রাজেশ সেন, রিজিয়া পারভীন, বাবুল রহমান, সাহেদ রানা, ইমরান হোসাইন ফার্সিসহ অনেকেই।