ভারতীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান ড. আরতি প্রভাবকরকে হোয়াইট হাউজের পরবর্তী বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা পদে মনোনয়ন দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। নিজের প্রশাসনে বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবন কর্মকাণ্ড জোরদারের লক্ষ্যে তাকে নিয়োগ দিচ্ছেন প্রেসিডেন্ট। 

সিনেটে অনুমোদন পেলে ড. প্রভাকরই হবেন বাইডেনের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক প্রধান উপদেষ্টা, প্রেসিডেন্ট কাউন্সিলের বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তির বিষয়ক কো-চেয়ার এবং প্রেসিডেন্ট ক্যাবিনেটের সদস্য।  খবর এনডিটিভির।

মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, আজকে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি পলিসি অফিসে (ওএসটিপি) ড. আরতি প্রভাকরকে পরিচালক হিসেবে নিয়োগের জন্য মনোনয়নের ঘোষণা দিয়েছেন। নির্বাচিত হলে তিনি প্রেসিডেন্টের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সহকারী হিসেবেও কাজ করবেন।  সিনেটে অনুমোদন পেলে ড. প্রভাকর হবেন বাইডেনের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রধান উপদেষ্টা, প্রেসিডেন্ট কাউন্সিলের বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তির বিষয়ক কো-চেয়ার এবং প্রেসিডেন্ট ক্যাবিনেটের সদস্য।  

বাইডেন ড. প্রভাকরকে একজন মেধাবী ও অত্যন্ত সম্মানি প্রকৌশলী এবং ফলিত পদার্থবিদ হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে আমাদের সম্ভাবনা বাড়াতে, আমাদের সবচেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের সমাধানে এবং অসম্ভবকে সম্ভব করতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি পলিসি অফিসের নেতৃত্ব দেবেন এই ভারতীয় আমেরিকান। 

এদিকে হোয়াইট হাউজের বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ড. প্রভাবকরের ওএসটিপির দায়িত্ব নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হলে তিনিই হবেন তৃতীয় এশিয়ান আমেরিকান যিনি বাইডেন মন্ত্রিসভায় কাজ করবেন। এর আগে এশিয়ান আমেরিকান হিসেবে ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস এবং যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য প্রতিনিধি ক্যাথেরিন টাই বাইডেন প্রশাসনে যোগ দেন।  

প্রভাকরের বয়স যখন তিন তখন তার পরিবার যুক্তরাষ্ট্রে চলে যায়। প্রথমে পরিবারটি শিগাকো যায় এবং তার বয়স যখন ১০ তখন পরিবারটি টেক্সাসে চলে যায় এবং তিনি টেক্সাস টেক ইউনিভার্সিটি থেকে ইলেক্ট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ডিগ্রি নেন। 

ড. প্রভাকরই প্রথম নারী যিনি ক্যালিফোর্নিয়া ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি থেকে পিএইচডি করেছেন। এ ছাড়া একই ইনস্টিটিউট থেকে মাস্টার্স করেছেন। তিনি আইনি শাখায় প্রযুক্তি মূল্যায়ন অফিসে কংগ্রেসনাল ফেলো হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন।