বলিউডের সুপারহিট সিনেমা ‘থ্রি ইডিয়টস’-এর চতুরের কথা মনে পড়ে? বলিউডের কমেডি চরিত্রের মধ্যে চতুরের চরিত্র আজও দর্শকদের প্রিয়। কিন্তু সেই চরিত্রে অভিনয় করা ওমি বৈদ্য এখন কোথায়?

‘থ্রি ইডিয়টস’ ছবির বিপুল সাফল্যের পর ২০১১ সালে ওমিকে অজয় দেবগণ এবং ইমরান হাসমির সঙ্গে ‘দিল তো বাচ্চা হ্যায় জি’ ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যায়। এরপর ‘দেশি বয়েজ’, ‘জোড়ি ব্রেকার্স’, ‘প্লেয়ার্স’, ‘মেট্রো পার্ক’, ‘ব্ল্যাকমেল’, ‘মিরর গেম’ প্রভৃতি বহু ছবিতে পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি।

২০১৮ সালের পর ওমিকে আর বড় পর্দায় দেখা যায়নি। তবে ইনস্টাগ্রামে তাকে প্রচুর শর্ট ভিডিওর ক্লিপ পোস্ট করতে দেখা গেছে।

বর্তমানে তিনি স্ত্রী মিনাল পটেল এবং তার দুই সন্তানসহ আমেরিকার বাসিন্দা। খুর শীঘ্রই দর্শক তাকে নতুন রূপে দেখতে চলেছেন। একটি মরাঠি ছবি পরিচালনা করছেন তিনি। সেই ছবির অধিকাংশ পুণে এবং মহারাষ্ট্রের অন্যান্য এলাকায় শুটিং করা হচ্ছে।

শুধুমাত্র বলিউডেই নয়, হলিউডেও কাজ করেছেন ওমি। ‘দ্য অফিস’ নামের বিখ্যাত আমেরিকান ধারাবাহিকের দুটি এপিসোডে তিনি অভিনয়ও করেছেন।

এ ছাড়াও ‘অ্যারেস্টেড ডেভেলপমেন্ট’, ‘বোনস্’ সিরিজেও কাজ করেছেন ওমি। ক্যালিফোর্নিয়াতে শৈশব ও কৈশোর জীবনের বেশির ভাগ সময় কাটানোর পর তিনি নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটিতে স্নাতক স্তরের পড়াশোনা শেষ করে নিউ ইয়র্ক ফিল্ম স্কুলে ভর্তি হন।

সেখানেই ফিল্মের খুঁটিনাটি— এডিটিং থেকে শুরু করে অভিনয়, ফিল্ম মেকিং সংক্রান্ত বিষয়ে শিক্ষালাভ করেন। তিনি এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘চতুর’র মতো আর কোনো চরিত্রে তিনি অভিনয় করার সুযোগ পাননি। এই চরিত্রটি যেন তার জীবনের থেকেও বড়। কোনো সিনেমার স্ক্রিপ্ট পড়ার সময় যখন চরিত্রটি তার পছন্দসই হয় না, তখন তার ‘থ্রি ইডিয়টস্’র কথাই মনে পড়ে।

তিনি জানিয়েছেন, চতুরের চরিত্রে অভিনয় করার আগে নাকি তাকে কোনো হিন্দি ছবি দেখতেও বারণ করা হয়েছিল। তার আমেরিকান স্টাইলে কথা বলার কায়দাই চতুরের চরিত্রে আলাদা মাত্রা এনে দিয়েছিল। সম্প্রতি ওমি ‘ব্রাউন নেশন’ নামে একটি ইন্দো-আমেরিকান সিরিজে অভিনয় করছেন। আবার কবে তিনি বড় পর্দায় আসবেন, তা নিয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি। আপাতত ‘সাইলেন্সর’ ছবি পরিচালনার কাজ এবং আমেরিকান সিরিজের কাজ নিয়ে ব্যস্ত।