চট্টগ্রামে দুর্নীতির মামলায় অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও তার স্ত্রী চুমকি কারন তাদের পক্ষে যুক্তিতর্ক তুলে ধরবেন আগামী ৫ জুলাই।

সোমবার দুপুরে চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ বিচারক মুন্সী আবদুল মজিদের আদালতে এ যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের দিন ধার্য্য ছিল। কিন্তু তিনি ছুটিতে থাকায় আগামী ৫ জুলাই নতুন সময় নির্ধারণ করেন আদালত।

দুদকের পিপি আইনজীবী মাহমুদুল হক মাহমুদ বলেন, আসামি ওসি প্রদীপ ও চুমকির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। এ সময় আদালতের কাছে আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা চেয়েছি।

দুদকে প্রদীপের বিরুদ্ধে ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত অর্থ দিয়ে নগরীর কোতোয়ালি থানার পাথরঘাটা এলাকার একটি ছয়তলা বাড়ি নির্মাণ করেন। আসামি চুমকি কারনের কমিশন ব্যবসা এবং বোয়ালখালী উপজেলায় ১০ বছরের জন্য লিজ নেওয়া পাঁচটি পুকুরে মাছের ব্যবসার যে আয় দেখানো হয়েছে তার কোনো প্রমাণ পায়নি দুদক। কমিশন ব্যবসায়ী ও মৎস্য ব্যবসায়ী সাজিয়ে অবৈধ সম্পদ বৈধ করেছেন তারা। তাদের বিরুদ্ধে চার কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করে দুদক। মামলায় ২৯ সাক্ষীর মধ্যে ২৪ জন সাক্ষ্য দেন।