ব্রাজিল দলে নেইমার জুনিয়র খেলেন সেন্ট্রাল নাম্বার টেন পজিশনে। কিন্তু পিএসজিতে তাকে খেলানো হচ্ছে ‘ডাউন দ্য মিডল’ (মিডল-উইঙ্গ বরাবর) পজিশনে। জাতীয় দলের জার্সিতে দুর্দান্ত ছন্দে আছেন তিনি। কিন্তু ক্লাবের হয়ে ধার হারিয়েছেন।

ফুটবল বিশ্লেষকরা এখন আবার তাকে রাইট উইঙ্গে খেলানোর কথা বলছেন। কারণ সেন্ট্রাল পজিশনে নেইমার বারবার বলের পজিশন হারান। ভুল করেন। কিন্তু ব্রাজিল কোচ তিতে মনে করছন, নেইমারের জন্য নাম্বার টেন পজিশনই সেরা। তাকে যে কোচ উইঙ্গে খেলাবেন তিনি একটা গাধা। 

কাতার বিশ্বকাপে ব্রাজিলের মেইন ম্যান নেইমারকে নিয়ে কোচ তিতে সিক্স স্টার পোডকাস্টে বলেন, ‘নেইমার দলের জন্য সমস্যা নয়, সে সমাধান। তারা বলেন (কোচ-বিশ্লেষক) নেইমার সেন্ট্রাল পজিশনে অনেক ভুল করেন। কিন্তু ওটাই তার পজিশন, সে ভুল করে কারণ তাকে ক্রিয়েটিভ কাজ করতে হয়। যেটা মাঠে সবচেয়ে দরকারি।’ 

ব্রাজিল কোচ বলেন, ‘কেউ যদি নেইমারকে উইঙ্গে খেলায় আমি তাকে গাঁধা বললো। কারণ এতে করে নেইমারকে, তার মতো সৃজনশীল, কোয়ালিটি সম্পন্ন ফুটবলারকে বেধে ফেলা হয়। আর সৃজনশীলতা পরিস্থিতি মিটিয়ে হয়, আকস্মিক হয়, ওটা বলে কয়ে হয় না। মানছি নেইমার ভুল করবে কিন্তু দরকারের সময় সে ঠিকই ক্রিয়েটিভি দেখাবে।’ 

বার্সায় নেইমার দুই তারকা মেসি-সুয়ারেজকে দুই পাশে রেখে ওয়াইড রোল প্লে করতেন। ২০১৭ সালে রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ইউরোতে পিএসজি আসেন তিনি। প্রথম সেশনে ইনজুরি বাধা পেরিয়ে ২৮ গোল করেন। প্রথম সেশনে পিএসজি’র মেইন ম্যান ছিলেন তিনি। সেন্ট্রাল পজিশনে খেলেছিলেন। 

পরের তিন মৌসুমে তার পারফরম্যান্সের গ্রাফ নিচের দিকে ছুটেছে। শেষ চার মৌসুমে তিনি যথাক্রমে ২৩, ১৯, ১৭ ও ১৩ গোল করেছেন। অথচ এই নেইমার ব্রাজিল দলের হয়ে শুরু থেকেই অপ্রতিরোধ্য। তিতের অধীনেও ভালো ছন্দে আছেন তিনি। সর্বশেষ দুই ম্যাচে গোল করেছেন। ৭৪ গোল দিয়ে ব্রাজিলের পক্ষে সর্বোচ্চ (চার গোল দরকার) গোলের পথে আছেন।