বিদ্যা সিনহা মিম। অভিনেত্রী ও মডেল। সিনেমা, টিভি নাটকের পাশাপাশি ওয়েবমাধ্যমেও ব্যস্ত এ অভিনেত্রী। ঈদে মুক্তি পাচ্ছে তাঁর অভিনীত সিনেমা 'পরাণ'। রায়হান রাফি পরিচালিত এ সিনেমা, বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হয় তাঁর সঙ্গে-

শুনেছি, 'পরাণ' সিনেমার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটছে আপনার...


হ্যাঁ,গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ছবির প্রচারণা নিয়ে খুব ব্যস্ততায় দিন যাচ্ছে। আজ [শনিবার] গাজী টেলিভিশনে যাচ্ছি। এই চ্যানেলের আলাপচারিতার একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেব। এখানে 'পরাণ' ছবিটি নিয়েও কথা বলব।

এরই মধ্যে প্রকাশ হয়েছে সিনেমার গান 'চলো নিরালায়'। কেমন সাড়া পাচ্ছেন?

শরিফুল রাজ ও আমার রসায়ন নিয়ে সাজানো 'চলো নিরালায়'-এর ভিডিওটি প্রকাশ হয়েছে গত সোমবার। আমাদের খুনসুটি, প্রাণচাঞ্চল্য, পাগলামিসহ সবই নজর কেড়েছে সবার। দর্শক-শ্রোতা এখনও ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন। মোটা দাগে বলা যায়, এই গানের সুবাদে এ জুটিকে বড় পর্দায় দেখার আগ্রহ বেড়েছে দর্শকদের। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি সংগীতাঙ্গনের শিল্পীরা সামাজিক মাধ্যমে গানটির প্রশংসা করেছেন। গানের কথা অসাধারণ। জনি হকের কথায় 'চলো নিরালায়' গেয়েছেন অয়ন চাকলাদার ও আতিয়া আনিসা।

চার বছর পর ঈদে 'পরাণ' নিয়ে দর্শকের সামনে আসছেন। সিনেমাটি নিয়ে আশাবাদ কেমন?

দর্শক পর্দায় ভালো একটি গল্প দেখতে চায়। এটি তেমনই গল্পের ছবি। এখানে আমার চরিত্র মফস্বলের এক মেয়ের। এটি চেনাজানা চরিত্র। যে জন্য এ চরিত্রটির সঙ্গে একেবারে মিশে গিয়েছিলাম। দৃশ্যধারণের সময় মনে হতো, মাত্র কলেজ থেকে ফিরছি। ছবিটি দর্শককে ভাবাবে, কাঁদাবে। ডাবিংয়ের সময় ছবির মিনিট দুয়েকের ছোট্ট একটি দৃশ্য দেখে আমি কেঁদেছি। নিজের সিনেমা বলেই বলছি না; মেকিং ভালো হয়েছে বলে এটি বলছি। ছবিটি নিয়ে অনেক কষ্ট করেছি। খুব সকালে উঠে শুটিং লোকেশনে যেতে হয়েছে। একটি দৃশ্যের জন্য টানা তিন দিন মধ্যরাত পর্যন্ত বসে ছিলাম। কষ্ট সার্থক হবে যদি দর্শক ছবিটি দেখেন। সব মিলিয়ে এটি দর্শকের মন ভরাবে- এ আশা করা যায়।

ছোট পর্দার জন্য আসছে ঈদের কাজ করেছেন। এ মাধ্যমে নিয়মিত হওয়ার ইচ্ছা রয়েছে?

দেখুন, আমি পর্দা বিভাজনে বিশ্বাসী নই। যে কোনো মাধ্যমের ভালো কাজ হলেই করব। কারণ, দিনশেষে ভালো কাজই দর্শক মনে রাখে। এখন যেহেতু সিনেমায় ব্যস্ততা কম। ভালো গল্প ও চরিত্র পেয়েছি বলেই ছোট পর্দার জন্য চারটি ফিচার ফিল্মে অভিনয় করেছি। তবে ছোট পর্দায় নিয়মিত হওয়ার ইচ্ছা নেই।

একটি ফিচার ফিল্মে তিনটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন। কাজের অভিজ্ঞতা কেমন?

বেশ ভালো। 'রিস্কি লাভ' ফিচার ফিল্মে প্রথমবারের মতো চরিত্র পুলিশ, চা বিক্রেতা ও এক সাধারণ মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছি। তিনটি লুকে কাজের চ্যালেঞ্জই অন্যরকম। খুব এনজয় করেছি। ওসমান মিরাজ পরিচালিত এই টুইস্ট থ্রিলারধর্মী ফিচার ফিল্মে প্রথমবার আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন জোভান।

হাতে থাকা সিনেমার কী অবস্থা?

দীপঙ্কর দীপনের 'অন্তর্জাল' ও রায়হান রাফির 'দামাল' ছবির কাজ শেষ করেছি। আর হাতে রয়েছে 'ইত্তেফাক' ছবিটি। এর পঞ্চাশভাগ দৃশ্যধারণ শেষ হয়েছে।

'পরাণ' এখনও সেন্সর ছাড়পত্র পায়নি। এর আগেই শুরু হয়েছে টিকিট বিক্রি। বিষয়টি কীভাবে দেখছেন?

সিনেমাটি সেন্সর সনদ পায়নি- এটা আমি জানি না। যে বিষয়টি আমি জানি না, তা নিয়ে কথা না বলাই ভালো। এ প্রশ্নের উত্তর নির্মাতাই ভালো বলতে পারবেন। তবে সিনেমাটি ঈদে মুক্তি পাবে- এটি আমাকে নির্মাতা নিশ্চিত করেছেন।