সরকারি অনুদানে নির্মিত 'আশীর্বাদ' ছবির সহ-প্রযোজক জেনিফার ফেরদৌস একের পর এক মিথ্যা অভিযোগ ও মানহানীকর মন্তব্য করে যাচ্ছেন বলে দাবি করেছেন  চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। এর প্রতিবাদে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতে ওই প্রযোজকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন তিনি। 

বিষয়টি মঙ্গলবার সমকালকে জানিয়েছেন মাহিয়া মাহি। তিনি বলেন, 'প্রথমে যখন ওই প্রযোজক আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেন, তখন শিল্পী সমিতিকে মৌখিকভাবে জানিয়েছিলাম। ভেবেছিলাম তিনি হয়তো এমনটি আর করবেন না। কিন্তু ক্রমেই উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তিনি একের পর মিথ্যা অভিযোগ করে যাচ্ছেন, আমার বিরুদ্ধে অশ্লীলবাক্য ছড়িয়ে দিচ্ছেন। তাই এবার লিখিত অভিযোগ করলাম। এখন আমাদের অভিভাবকরাই বিষয়টি দেখবেন।'

২০১৯-২০ অর্থবছরে ৬০ লাখ টাকা সরকারি অনুদান প্রাপ্ত সিনেমা ‘আশীর্বাদ’। ছবিটির সহ-প্রযোজক জেনিফার ফেরদৌসের সঙ্গে নায়ক-নায়িকা ও অন্যান্য কলাকুশলী দ্বন্দ্বে জড়ানোর কারণে গত শুক্রবার ছবিটি মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও মুক্তি পায়নি। ছবিটিতে মাহিয়া মাহি ও জিয়াউর রোশান জুটি বেধে অভিনয় করেছেন।

কিছুদিন আগে নায়ক-নায়িকাকে না জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন জেনিফার। সেখানে ছবির নায়ক নায়িকার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ আনেন তিনি। পরে আলাদা সংবাদ সম্মেলনে সেই অভিযোগ খণ্ডন করেন নায়ক-নায়িকা। এরপর প্রযোজক জেনিফার নায়িকা মাহির সম্পর্কে আরও কিছু কথা বলেন। ব্যক্তিগত বিষয়েও মন্তব্য করেন। পাশাপাশি মাহিয়া মাহির বিরুদ্ধে মামলা করবেন বলে জানান।

নায়িকা মাহি বলেছেন, প্রযোজক জেনিফারের আনা সব অভিযোগ মিথ্যা। তার মন্তব্যকে 'বাজে' বলেও উল্লেখ করেন তিনি। মাহি এ ব্যাপারে শিল্পী সমিতিতে দেওয়া অভিযোগপত্রে লিখেছেন, 'প্রযোজক জেনিফারের এসব উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বক্তব্য ও জিঘাংসামূলক কর্মকাণ্ডে আমি বিব্রত।এতে আমার মানহানি হচ্ছে। শুধু তাই নয়, তার এই সব বক্তব্যে জনমনে শিল্পীদের সম্পর্কে নেতিবাচক মনোভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। এটা সকল চলচ্চিত্র শিল্পীদের ইমেজ ক্ষুণ্ন করছে।'