দক্ষিণী সিনেমার তারকা বিজয় দেবরকোন্ডা। 'অর্জুন রেড্ডি', 'ডিয়ার কমরেড'' ছবিগুলোর মাধ্যমে রীতিমতো সুপারস্টরের তকমা পেয়ে যান তিনি। যার ফলে বলিউডের ছবিতে অভিষেক হতে দেরি হলো তার ।  ২৫ অগাস্ট  বিজয় দেবেরাকোণ্ডার প্রথম বলিউড মুভি 'লাইগার' মুক্তি পায়।  ছবিটি মুক্তির আগে থেকেই প্রচারের চাকচিক্য ছিল চোখে পরার মতো। ১৯৯ রুপির হাওয়াই চপ্পল পড়ে বিজয়ের স্টেজে ওঠা থেকে স্নাতক চায়েওয়ালির দোকানে দাঁড়িয়ে চায়ের কাপে চুমুক...সবেতেই ছিল অভিনত্বের ছোঁয়া।  কিন্তু মুক্তির পর বক্স অফিসে সুবিধা করতে পারল না বিজয়ের 'লাইগার'।

প্রথম দিন বক্স অফিসে গ্র্যান্ড ওপেনিং হলেও দুপুর গড়াতেই ব্যবসার বেগ কমতে শুরু করে। ছবিকে ঘিরে নেগেটিভ রিভিউয়ের জন্যই এমন ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করছেন চলচ্চিত্রবোদ্ধারা।

পুরী জগন্নাথ পরিচালিত ‘লাইগার’ বিশ্বব্যাপী ২৪.৫ কোটি রুপি আয় করেছে। অন্ধ্রবক্সঅফিস ডটকম জানিয়েছে, তেলেগু ভাষায় প্রথম দিন সিনেমাটির আয় ১৫ কোটি রুপি। অন্যদিকে হিন্দি সংস্করেণ এটির আয় ৫ কোটি রুপি, যা প্রত্যাশার তুলনায় কম।

এমনিতেই বলিউড বক্স অফিসে এখন বেহাল দশা চলছে। সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া একের পর এক সিনেমা ফ্লপের খাতায় নাম লেখাচ্ছে। এর মধ্যে বিজয়ের এই সিনেমা নিয়ে আশার আলো দেখেছিলেন বক্স অফিস বিশ্লেষকরা।  কিন্তু  ব্যবসা দিতে পারল না 'লাইগার'।

এর আগে গুঞ্জন ওঠে, ‘লাইগার’ সিনেমা ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে মুক্তির জন্য ২০০ কোটি রুপির প্রস্তাব দিয়েছে একটি অনলাইন স্ট্রিমিং সাইট। পরে মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে এই খবরের একটি স্ক্রিনশট প্রকাশ করেছিলেন বিজয়। ক্যাপশনে লেখেন, ‘খুবই কম। আমি প্রেক্ষাগৃহ থেকে এর চেয়ে বেশি আয় করব।’

স্পোর্টস-অ্যাকশন ঘরানার ‘লাইগার’ পরিচানার পাশাপাশি চিত্রনাট্য লিখেছেন পুরী জগন্নাথ। হিন্দির পাশাপাশি তেলেগু ভাষায় সিনেমাটির শুটিং হয়েছে। পাশাপাশি তামিল, কন্নড় ও মালায়ালাম ভাষায় ডাবিং করে সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া হয়। এটি প্রযোজনা করেছেন করন জোহর। বিজয়ের নায়িকা হিসেবে আছেন অনন্যা পান্ডে।