দীপংকর দীপন। চলচ্চিত্র পরিচালক। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে তাঁর নির্মিত দ্বিতীয় সিনেমা 'অপারেশন সুন্দরবন'। এ ছাড়া নির্মাণ করছেন সাইবার ওয়ার্ল্ড নিয়ে 'অন্তর্জাল'। নতুন ছবি মুক্তি ও নানা প্রসঙ্গে কথা হয় তাঁর সঙ্গে-

'অপারেশন সুন্দরবন' সিনেমা মুক্তি নিয়ে দর্শক সাড়া কেমন পাচ্ছেন?

ছবিটি আমাদের অনেক দিনের পরিশ্রমের ফসল। এটি মুক্তির পর এখন পর্যন্ত কোনো নেতিবাচক রিভিউ পাইনি। যাঁরা দেখেছেন তাঁরা সবাই প্রশংসা করেছেন। এখানে অ্যাকশন, সাসপেন্স, আবেগ, প্রেম-গান সব আছে। তবে সেটা অথেনটিকভাবে আনার চেষ্টা করেছি সিনেমাটিক স্টাইলাইজেশন দিয়ে। রহস্য ও রোমাঞ্চের সিনেমা 'অপারেশন সুন্দরবন'। ধীরে ধীরে তাঁরা কানেক্ট হচ্ছেন। যাঁরা বলতেন, এটা র‌্যাবের ছবি, একটা ডকুমেন্টারি হবে; যাঁরা নেতিবাচক কথা বলেছেন, তাঁরাও ছবিটি দেখছেন। তাঁরাই বলেছেন, দীপংকর সত্যিই দারুণ ছবি বানিয়েছেন।

'ঢাকা অ্যাটাক' মুক্তির পর আপনার কাছে দর্শক প্রত্যাশাও বেড়েছে। 'অপারেশন সুন্দরবন' মুক্তির আগে কি তা নিয়ে চাপ অনুভব করেছেন?

এমনিতেই সবসময় চাপমুক্ত থাকার চর্চা করি। থাকিও। কারণ আমি জানি, আমি কী বানিয়েছি। তারপরও চ্যালেঞ্জ ছিল দর্শক হলমুখী করার। কারণ করোনাকাল থেকে সিনেমা হলগুলো ছিল দর্শকশূন্য। তাঁদের কীভাবে হলে ফিরিয়ে আনা যায়, সেটাই ছিল বড় ভাবনা। তবে ছবির কাজ পরিকল্পনামাফিক শেষ করতে পেরে আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছিলাম। 'ঢাকা অ্যাটাক' যাঁরা দেখে ভালো লাগার কথা বলেছেন, তাঁদের 'অপারেশন সুন্দরবন' আরও ভালো লাগবে- এই বিশ্বাস আমার ছিল। এখন সেটাই চোখে পড়ছে। দর্শক ছবিটি পছন্দ করছেন।

প্রথম ছবি মুক্তির পাঁচ বছর পর দ্বিতীয় ছবি। এত লম্বা বিরতি কেন?

ভালো কিছুর জন্য একটা লম্বা সময় অপেক্ষা করতেই হবে। 'অপারেশন সুন্দরবন' ছবির পেছনেই আমার চার বছর লেগে গেছে। মাঝখানে করোনা আসার কারণে কাজ তো আরও পিছিয়ে গিয়েছিল। এটি ছাড়াও 'অন্তর্জাল' ছবির শুটিং শুরু করেছিলাম। সব মিলিয়ে দেরি হয়েছে।

পরপর 'পরাণ', 'হাওয়া' ব্যাপক সাফল্য পেল। এই সময়ে 'অপারেশন সুন্দরবন' কি ব্যবসায়িক দিক থেকে চাপের মধ্যে পড়ছে না?

'পরাণ', 'হাওয়া' আমাদের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে দারুণ কিছু বয়ে এনেছে। সেই ধারাবাহিকতায় একটু চাপ থাকার কথা। এ ছাড়া মাসের একেবারে শেষে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে। এই সময়ে অনেকের কাছে হলে গিয়ে ছবি দেখার মতো বাড়তি টাকাও থাকে না। তবে ছবিটি দর্শক দীর্ঘদিন দেখবেন, সে বিশ্বাস আমার আছে।

'অপারেশন সুন্দরবন' ছবিটিতে সুন্দরবনকে কতটা তুলে আনতে পেরেছেন?

 আমি নিজেও সুন্দরবেনর প্রেমে হাবুডুবু খাওয়া মানুষ। সুন্দরবনের যতবার গিয়েছি ততবার নতুন নতুন রুপ দেখেছি। আমি যা দেখেছি তার সব তুলে আনা সম্ভব তা নয়। কিন্তু যা তুলে আনতে পেরেছি সেটা অনেকে দেখেনি। ছবিটির গল্পের হাত ধরে সুন্দরবনের ভরপুর সৌন্দর্য অনেক আছে। অন্যদিকে দেখানোর আরো অনেক কিছু আছে।

আপনার পরের ছবি 'অন্তর্জাল' এর আপডেট কি?

আমরা ইতোমধ্যে ছবির প্রধান অংশগুলো শেষ করেছি। বাকি অল্প কিছু অংশ আছে; যেগুলোও শিগগিরই শেষ হবে। আর বিদেশেও আমরা কিছু শুটিং করবো। তবে এখনও ঠিক করতে পারিনি এটা কোথায় হবে।