সুপ্রিমকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন দেশের ১১ জন বিশিষ্ট নাগরিক। শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এই নিন্দা জানানো হয়।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করা ১১ জন নাগরিক হলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম, অধ্যাপক অনুপম সেন, ডা. সারওয়ার আলী, সাংবাদিক আবেদ খান, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দীন ইউসুফ, সাংবাদিক শাহরিয়ার কবীর, অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, কবি ড. মুহাম্মদ সামাদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব গোলাম কুদ্দুছ, কাজী মুকুল ও আবৃত্তিশিল্পী আহকমউল্লাহ।

বিবৃতিতে তারা বলেন, যুদ্ধাপরাধী ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির যোগসাজশে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্ট এই হামলার মূল লক্ষ্য। মুখে গণতন্ত্রের কথা বললেও চিহ্নিত হামলাকারীরা যে প্রকৃতপক্ষে গণতন্ত্র এবং ভিন্নমতকে ধারণ করে না, এ সত্য নতুন করে আবার প্রমাণিত হলো। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনের নামে কার্যত এই আন্দোলন মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তবুদ্ধি বিরোধী একটি অপকৌশল।

বিবৃতিতে গ্রেপ্তারকৃত হামলাকারীদের দ্রুত বিচারিক আদালতে বিচার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের পাশাপাশি দেশবাসীকে যেকোনো ধরনের নৈরাজ্য সৃষ্টির বিরুদ্ধে সচেতন ও ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানানো হয়।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর পল্টন এলাকায় নিজ গাড়িতে যাওয়ার পথে একটি মিছিল থেকে বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকের ওপর হামলা চালানো হয়। এসময় তার গাড়ি ভাংচুর করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় তার দেহরক্ষী রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে পল্টন মডেল থানায় মামলা করেন। মামলায় বিএনপির ৪০ থেকে ৫০ জন অজ্ঞাত নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়। এ ঘটনায় পল্টন থানায় হওয়া মামলায় ইতোমধ্যে ১২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।