‘লাইগার’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয়েছে দক্ষিণী নায়ক বিজয় দেবরকোন্ডা। তবে ছবিটি তাকে তেমন সাফল্য এনে দেয়নি। বক্স অফিসে ব্যবসা করতে পারেনি ছবিটি। তবে ব্যবসা না করতে পারলেও ছবিটি নিয়ে ভালোই বিপাকে পড়েছেন এই অভিনেতা।

বুধবার 'লাইগার' নিয়ে  জিজ্ঞাসাবাদের জেরে বিজয় দেবরকোন্ডাকে তলব করেছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) কর্মকর্তারা। যেখানে অভিনেতাকে প্রায় ১২ ঘণ্টা ধরে সিনেমাটি প্রসঙ্গে নানান প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে।

পরী জগন্নাথ পরিচালিত ও বিজয় দেবরকোন্ডা অভিনীত ‘লাইগার’ সিনেমাটির অধিকাংশ দৃশ্যধারণের কাজ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে। ফলে সিনেমার বিনিয়োগের বিষয়ে তদন্ত করছে ইডি। যার অংশ হিসেবে বিজয়কে তলব করেছিল এই সংস্থা।

ইডির এক কর্মকর্তা বলেন, ‘লাস ভেগাসে বিজয়ের কার্যক্রম, প্রযোজক তাকে কীভাবে পারিশ্রমিক দিয়েছেন সেসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।’ জানা যায়, সকাল সাড়ে ৮টা থেকে শুরু হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৮টা পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বিজয়কে।

এর আগে ‘লাইগার’ সিনেমায় বিনিয়োগের বিষয়ে কথা বলার জন্য গত ১৮ নভেম্বর পরিচালক পুরী জগন্নাথ ও সহ-প্রযোজক চার্মি কৌরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। সেদিনও তাদেরকে ১২ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

ইডি কর্মকর্তারা জানতে পেরেছেন, ‘লাইগার’ সিনেমায় বিনিয়োগের অর্থ প্রথমে দুবাই পাঠানো হয়। পরে সেসব অর্থ পুনরায় ভারতে এনে সিনেমাটিতে বিনিয়োগ করা হয়। আর এই ঘটনার সঙ্গে জনপ্রিয় একজন রাজনীতিবিদ জড়িত।

এদিকে ইডি অফিস থেকে বের হতে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে পরতে হয় বিজয়কে। এসময় বিজয় জানান,  ‘অতি জনপ্রিয়তা অনেক ধরনের চ্যালেঞ্জ নিয়ে আসে। আর এটি নিয়ে আপনি কিছু করতেও পারবেন না। আমি এটাকে একটা অভিজ্ঞতা হিসেবে দেখছি। ওরা যখন আমাকে ডেকেছে আমি নিজের কর্তব্য পালন করেছি। আমি তাদের সব প্রশ্নের জবাব দিয়েছি।’

স্পোর্টস-অ্যাকশন ঘরানার ‘লাইগার’ ছবিটির পরিচালনার পাশাপাশি চিত্রনাট্য লিখেন পুরী জগন্নাথ। এতে জুটি বেঁধে অভিনয় করেন বিজয় দেবরকোন্ডা ও অনন্যা পাণ্ডে।

হিন্দির পাশাপাশি তেলেগু ভাষায় সিনেমাটির শুটিং হয়। পাশাপাশি তামিল, কন্নড় ও মালায়ালাম ভাষায় ডাবিং করে সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া হয়। ১৭৫ কোটি রুপি বাজেটের এই সিনেমা মাত্র ৫০ কোটি রুপির মতো আয় করেছে।