শাকিব-বুবলী ও অপু বিশ্বাস ইস্যুতে ত্রিমূখী মন্তব্য পাল্টা মন্তব্য চলে আসছিলো। এরই মধ্যে এক সাক্ষাৎকারে শাকিব খান বলেই দিলেন অপু-বুবলী এখন তার কাছে অতীত। সাম্প্রতিক এই ইস্যু নিয়ে কথা বলেন অপু বিশ্বাস...

আপনার প্রযোজিত প্রথম ছবি‘লাল শাড়ি’র শুটিং তো শেষ। প্রথম প্রযোজনার অভিজ্ঞতা কেমন?


অভিজ্ঞতা তো আগের মতোই। আগেও যেমন শুটিং করেছি, এখনও করছি। তবে বেড়েছে শুধু দায়িত্বের জায়গা। তবে শুটিংয়ে সবার সহযোগিতায় সমস্যা হয়নি। ভালোভাবেই শুটিং শেষ করতে পেরেছি। 

ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে কবে?

সবে তো শুটিং শেষ হলো। এখন তো বেশ কাজ বাকি। সব কাজ শেষ হলেই  ভালো দিনক্ষণ দেখেই মুক্তি দিতে চাই। সেটা অবশ্যই আগামী বছর। 

শুনলাম, শাকিব খানের বাসায় আপনার যাতায়াত বেড়েছে?

দেখুন শাকিব খানকে নিয়ে আমি অনেক বলেছি। এখন আর এসব বিষয় নিয়ে কথা বলতে ভালো লাগে না। আমার কাজ নিয়ে কথা বলুন। তবে একটা কথা বলে রাখি, শাকিব যেহেতু আমার সন্তান জয়ের বাবা, তাই বাবার বাড়িতে সন্তান যাবেই। আর আমি আমার ছেলেকে একা ছাড়তে পারি না। 

এদিকে বুবলী বলেছে শাকিব আর তার মধ্যে তৃতীয় পক্ষ এসেছে। সবাই তৃতীয় পক্ষ হিসেবে আপনাকেই মনে করছেন?

যিনি বলেছেন, বিষয়টি তার কাছেই ক্লিয়ার হোন। আমাকে জিজ্ঞেস করছেন কেন! কে তৃতীয় পক্ষ, কে প্রথম পক্ষ সেটি তার কাছে থেকেই শুনুন। এসবের মাঝে আমাকে না টানাই ভালো। আমি এখন ভালো আছি, কাজ করছি। দর্শকের মাঝে, কাজ নিয়েই নিয়েই থাকতে চাই।

সম্প্রতি শাকিব খান তো আপনাকে নিয়েও কথা বলেছেন। আপনি তার কাছে অতীত এটাও বললেন...

আমাদের সবই তো সবার জানা এখন। এখন আমাকে নিয়ে তার বা তাকে নিয়ে নিয়ে আমার কোনো মিথ্যাচার করার কিছু নেই,  ঠিক তেমনি নতুন করে বলারও কিছু নেই। জীবনের একটা অধ্যায় চলে গেছে। অনেক ঘটনা ঘটেছে। জীবনকে আর  হাস্যকর বানাতে চাই না। আমি পুত্রকে নিয়ে সুখে আছি, ভালো আছি।

শাকিব আমেরিকায় নাগরিকত্ব নিয়েছেন। আপনিও নাকি সেখানকার ভিসা নিয়েছেন?

শুধু আমার না, জয়েরও ভিসা হয়েছে। আর আমেরিকান ভিসা আহামরি কিছু নয়। আমার ছেলে ডিজনি ওয়ার্ল্ড খুবই পছন্দ করে। তাই মনে হলো আমেরিকার ভিসার জন্য আবেদন করি। হয়ে গেলে ক্ষতি কি। ভিসা পেয়েও গেলাম। এটি নিয়ে কথা বলারও কিছু দেখছি না আমি।