ব্রাজিলে দিনে-দুপুরে চুরি-ছিনতাই নতুন ঘটনা নয়। তবে এর শিকার যে হতে হবে সেলেকাওদের কোচ তিতের, তা হয়তো তিনি নিজেও ভাবতে পারেননি। বিশ্বকাপে ব্যর্থতার জের নিয়ে দেশে ফিরতেই ছিনতাইকারীর শিকারে পড়েন তিতে। শুধু তাই নয়, ছিনতাইকারী যখন জানতে পারেন তিনিই ব্রাজিলের কোচ তিতে। তখন তাকে ভর্ৎসনা করে রীতিমতো গালিগালাজও করে চোর।

ব্রাজিলিয়ান সংবাদমাধ্যম 'ও গ্লোবো' জানিয়েছেন, 'গতকাল ব্রাজিলের রিওতে নিজ এলাকা দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন তিতে। ঐসময় তার সাথে থাকা একটি চেইন ছিনতাই হয়। পালিয়ে যাওয়ার সময় ছিনতাইকারী তাকে কাতারে ব্রাজিলের অতি খারাপ পারফরমেন্সের জন্য গালিগালাজ করেছে বলে জানিয়েছেন তিতে।'

ঘটনার প্রাথমিক তদন্ত শুরু করে স্থানীয় পুলিশ। তবে কোনো মামলা নথিভুক্ত হয়নি। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানিয়েছেন, 'সকালে নিজের স্ত্রীকে নিয়ে রাস্তায় হাঁটতে বেড়িয়েছিলেন তিতে। ঐসময় তারা দেখতে পান ছিনতাইকারী তাদের প্রতিবেশীর বাগানে চেইন দিয়ে বেঁধে রাখা সাইকেল চুরি করার চেষ্টা করছিল। সেই সময় তিতে বাধা দিতে গেলে শারীরিক ভাবে হেনস্তার শিকার হন। তিতেকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন তার স্ত্রী। অবস্থা বেগতিক দেখে চোর তিতের গলার চেইন নিয়ে পালিয়ে যায়।'

বিশ্বকাপে ব্যর্থতার জেরে কোচের পদ থেকেও সরে দাঁড়ান তিতে

গ্লোবোতে লেখা এক কলামে তিতের ছিনতাইকারীর কবলে পড়ার বিষয়টি সামনে আনেন ব্রাজিলিয়ান সাংবাদিক আনসেলমো গোইজ। তিনি জানান, পালিয়ে যাওয়ার সময় ব্রাজিল দলের বিশ্বকাপ–ব্যর্থতা নিয়ে তিতেকে তিরস্কার করে মন্তব্যও করে সেই ছিনতাইকারী।

তিতেও নিশ্চিত করেছে তার চেইন ছিনতাইয়ের বিষয়টি। তার পক্ষ থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, স্ত্রীকে নিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় বাইসাইকেলে থাকা এক ব্যক্তি তার গলায় থাকা চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। কাছাকাছি থাকা এক ব্যক্তি থামাতে চেষ্টা করলেও পারেননি। তিতে ওই ব্যক্তিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তবে তিতে বিশ্বকাপ–ব্যর্থতাসংক্রান্ত বিষয়ে ছিনতাইকারীর তিরস্কারের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

উল্লেখ্য, কোয়ার্টার ফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার কাছে ১(৪)-১(২) ব্যবধানে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয় ব্রাজিল। এরপরই সমাপ্তি ঘটে তিতে যুগের। ৮১ ম্যাচ ডাগ-আউটে থেকে ব্রাজিলকে ৬০ টি জয় এনে দেন ৬১ বছর বয়সি এই কোচ। কিন্তু দুটি বিশ্বকাপে দায়িত্ব পেয়েও সফলতার দেখা পাননি তিনি।