ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

‘শিডিউল দিলে শাকিব ভালো, না দিলেই খারাপ’

‘শিডিউল দিলে শাকিব ভালো, না দিলেই খারাপ’

শাকিব খান ও পরিচালক ওয়াজেদ আলী সুমন

বিনোদন প্রতিবেদক

প্রকাশ: ৩০ আগস্ট ২০২০ | ০৪:০৪ | আপডেট: ৩০ আগস্ট ২০২০ | ০৫:৪৯

‘‘ কথায় আছে খেতে না পারলে ‘আঙুর ফল টক’।শাকিব খানের বেলায়ও এমনটিই বেশি ঘটে। যখন তার সঙ্গে কোন নির্মাতা প্রযোজকের সম্পর্ক ভালো থাকে, তাদের শিডিউল দেয় তখন সে খুবই ভালো। শিডিউল দিতে না পারলেই শাকিব খারাপ। কয়েকদিন ধরে শাকিব খানের নামে শিডিউল ফাঁসানোসহ নানা অভিযোগ যারা তুলছেন যখন তাদের সঙ্গে শাকিব কাজ করেছেন তখন  তাদের অভিযোগ কই ছিলো?’’ কথাগুলো বলছিলেন অর্ধশত ছবির নির্মাতা ওয়াজেদ আলী সুমন। 

ক্যারিয়ারে ৫০টি ছবি নির্মাণ করেছেন ওয়াজেদ আলী সুমন। এর মধ্যে ২৫টির নায়কই শাকিব খান। সর্বশেষ শাকিব খানকে নিয়ে ‘ক্যাপ্টেন খান’ ছবিটি নির্মাণ করছেন সুমন। শাপলা মিডিয়ার ব্যানারে নির্মিত এই ছবিটিতেও শাকিব খান কখনও শিডিউল ফাঁসাননি বলেও মন্তব্য করেন তিনি। পাশাপাশি ২৫টি ছবির কোনটিতেই শাকিবের শিডিউলজণিত গড়মিলের রেকর্ড নেই বলেই মন্তব্য এ নির্মাতার।

সুমন বলেন, ‘ইচ্ছে করলেই একজন স্টার জন্ম দেওয়া যায় না। সুপারস্টাররা হচ্ছে গডগিফটেড। এ পর্যন্ত ৫০ ছবি পরিচালনা করেছি। এর বেশিরভাগ ছবির নায়ক শাকিব খান। আমার নিজের প্রযোজনায় নির্মিত ছবিতে নায়ক ছিলেন শাকিব। এর মধ্যে রয়েছে এক বুক জ্বালা, মনে বড় কষ্ট, টাইগার নম্বর ওয়ান। কোন ছবিতে কখনও শিডিউর ফাঁসাননি তিনি। বরং টানা কাজ করে মাত্র ৯ দিনেই শুটিং শেষ করে দেয়ার রেকর্ডও আছে। আমার সঙ্গে তো সিডিউল নিয়ে কখনো সমস্যা হয়নি।’ 

শাকিব খান অভিনীত অন্যতম একটি ব্যবসা সফল ছবি ‘মনে বড় কষ্ট’। এই ছবির নির্মাতাও ওয়াজেদ আলী সুমন। মাত্র ১৩ দিনে ছবিটির নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়েছিলো। ছবিটিতে ডে-নাইট কাজ করেন শাকিব খান। কতটা পরিশ্রম করলে ১৩ দিনে শুটিং শেষ হয় ভাবুন! এমন মন্তব্যই করেন সুমন। 

শাকিব খান এখন বাংলা চলচ্চিত্রের ভরসার নাম। সে সুপারস্টার। ওর মধ্যে একটু স্টারডম তো থাকবেই। এটাই বাস্তবতা। এমন মন্তব্য করে সুমন বলেন, ‘পৃথিবীর সব ইন্ডাস্ট্রির সুপার স্টারদের মধ্যে স্টারডম বিষয়টি থাকে। শাকিবের মধ্যে সেটা আছে। শাকিব তো এমনিতেই সুপার স্টার হয়নি তার সেই যোগ্যতা আছে বলেই হয়েছে। আল্লাহ্ যাকে সম্মান দিয়েছে আমারা কেনো দিবোনা। শাকিব খানকে নিয়ে সিনেমা বানালে প্রযোজকের টাকা ফেরত পাওয়া সম্ভব বেশি আছে বর্তমান প্রেক্ষাপৃটে। আমি বলতে চাই, শাকিব খানের পর বিকল্প তেমন কোনো অভিনয়শিল্পীই আসেননি, যাদের উপর পরিচালকেরা ভরসা করতে পারেন।’

সবশেষে কোন শিল্পীকে ছোট না করে সবাই মিলে একসঙ্গে চলচ্চিত্রকে এগিয়ে নিতে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান ওয়াজেদ আলী সুমন। 


আরও পড়ুন

×