উত্তর কোরিয়ায় আর ‘বেলুনবার্তা’ পাঠাতে দেবে না দক্ষিণ কোরিয়া

প্রকাশ: ০৪ জুন ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

দক্ষিণ কোরিয়ার জনগণকে উত্তর কোরিয়ায় আর বেলুনবার্তা পাঠাতে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের বোন কিম ইয়ো জং সম্প্রতি বেলুন প্রেরণকারীদের ‘মানব ময়লা’ বলে উল্লেখ করার পর দক্ষিণের তরফ থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। বছরের পর বছর ধরে বিভিন্ন মানবাধিকার কর্মী ও উত্তর কোরিয়া থেকে পালিয়ে আসা দলত্যাগকারীরা উত্তর কোরিয়ার নেতাদের সমালোচনা করে দক্ষিণ কোরিয়ার সীমান্ত থেকে উত্তর কোরিয়ার উদ্দেশ্যে এসব বেলুন উড়িয়ে দিত। দক্ষিণ কোরীয় সরকার বলেছে, এর মাধ্যমে দু’দেশের মধ্যে ‘উত্তেজনা’ ছড়িয়ে দেওয়ার মতো কাজ করা হয়। তবে যারা এই কাজটি করে থাকে, তারা বলেছে তারা তাদের কাজ বন্ধ করবে না। খবর বিবিসির।

প্রথম প্রথম বেলুনের ভেতর টাকা-পয়সা এবং খাবার দাবার এসব পাঠানো হতো। কিন্তু ২০১৪ সালে উত্তর কোরিয়ার সেনারা গুলি করে এসব বেলুন ফুটো করে দেওয়া শুরু করলে উভয় দেশের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। অবশ্য উত্তর কোরিয়ার নাগরিকরাও এর বিনিময়ে প্রথম প্রথম হিলিয়ামে ভরা এসব বেলুনে করে লিফলেট পাঠাত। তবে কিম জং উনের বোন কিম ইয়ো জং বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়া থেকে চলে যাওয়াদের অভিযুক্ত করে বিবৃতি দেন এবং এদের মানব ময়লা হিসেবে অভিহিত করেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, দল বা দেশত্যাগীরা যে কী পদার্থ, বিশ্ব যদি তা জানে তাহলে অবাক হয়ে যাবে। তিনি বলেন, বুনো পশুরাও তাদের নিজের আড্ডা ছেড়ে কোথাও চলে যায় না। কিন্তু এরা তা অনায়াসে পেরেছে।

কিম ইয়ো জংয়ের মতে, যারা এসব কুলাঙ্গারদের আশ্রয় দিয়েছে, তারা অর্থাৎ দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারের উচিত, এসব করা থেকে তাদের বিরত রাখা।ইয়ো জংয়ের এমন অভিযোগের পরই দক্ষিণ কোরিয়ার পক্ষ থেকে উত্তেজনা বন্ধ করার উদ্দেশে এই পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।