ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

মহাকালের ঘোড়সওয়ার

মহাকালের ঘোড়সওয়ার

'একাত্তর ও একজন নাট্যকার' নাটকের দৃশ্য

আবু সাঈদ তুলু

প্রকাশ: ১৯ অক্টোবর ২০২২ | ১২:০০

ড. ইনামুল হক [১৯৪৩-২০২১] স্বাধীন বাংলাদেশের নাট্যচর্চায় অবিস্মরণীয় এক শিল্পিত নাম। স্বাধীনতা-উত্তর নাট্য আন্দোলনকে যাঁরা বেগবান করেছেন, যাঁরা নাটককে জনগণের যাপিত জীবনের সুখ-দুঃখ, আকাঙ্ক্ষা-প্রতিবাদের ভাষায় রূপ দিয়েছেন তাঁদের মধ্যে ড. ইনামুল হক ছিলেন সবার আগে। চলতি বছরের ১১ অক্টোবর ছিল তাঁর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী। সে উপলক্ষে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় আয়োজিত হয় ড. ইনামুল হক স্মরণোৎসব 'মহাকালের ঘোড়সওয়ার ইনামুল হক'। সেদিন বিকেল ৫টায় নাট্যশালার লবিতে বাঁশির সুরে শুরু হয় স্মরণোৎসব। আবৃত্তি ও গান পরিবেশনার মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠানটি জমে ওঠে। সন্ধ্যা ৬টায় ধৃতি নৃত্যালয়ের পরিবেশনার মধ্যদিয়ে মূল মঞ্চে অনুষ্ঠান শুরু হয়। প্রথমেই দেখানো হয় ড. ইনামুল হকের জীবন ও কর্ম নিয়ে নির্মিত তথ্যচিত্র। তারপর তাঁকে নিয়ে স্মৃতিচারণা করেন বাংলাদেশের প্রথিতযশা নাট্যব্যক্তিগণ, দীর্ঘদিনের সহকর্মী, বিভিন্ন দলের নাট্যকর্মীরা। আজাদ আবুল কালামের সঞ্চালনায় ড. ইনামুল হককে স্মরণ করেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, মঞ্চসারথি আতাউর রহমান, নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার, মামুনুর রশীদ, নাসির উদ্দীন ইউসুফ; বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, নাট্যজন সারা যাকের। তাঁদের স্মৃতিচারণে ফুটে উঠতে থাকে তাঁর নিভৃতচারী মানসিকতা, নাট্য আন্দোলনের বলিষ্ঠ ও অকুতোভয় ভূমিকা, অভিনয়ের নানা প্রসঙ্গ, লেখালেখি, শিক্ষকতা ও তাঁর ব্যক্তি সম্পর্কের নানা দিক। পরে প্রদর্শিত হয় ড. ইনামুল হকের তিনটি নাটকের মূল ভাবনায় কোলাজ নিয়ে নির্মিত নাটক 'একাত্তর ও একজন নাট্যকার।' নাটকটির নির্দেশনায় তাঁরই কন্যা হূদি হক। এতে ঢাকার স্বনামধন্য নাট্যদল- নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়, থিয়েটার, আরণ্যক, সুবচন, প্রাচ্যনাট, নাট্যম, প্রাঙ্গণেমোর, বটতলা, থিয়েটার আর্ট ইউনিট, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী ও নাগরিক নাট্যাঙ্গনের কর্মীরা অভিনয় করেন। এ নাটকে ড. ইনামুল হক চরিত্রে অভিনয় করেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রতন সিদ্দিকী। সংলাপ নিয়ে নাট্যকার নিজেই আবির্ভূত হয়েছেন নাটকে। নাট্যকারের চিন্তা কেমন, এ নাটকের মধ্য দিয়ে অত্যন্ত চমৎকার ভাবে ফুটে উঠেছে। আমাদের মুক্তিযুদ্ধ, ভাষা আন্দোলন ও জীবনের সংগ্রাম নাটকের পরতে পরতে মিশে গেছে। 'একাত্তর ও একজন নাট্যকার' নাটকটি দেখতে নাট্যপ্রেমীর মিলনমেলা বসেছিল শিল্পকলায়।
'মহাকালের ঘোড়সওয়ার' আয়োজন প্রসঙ্গে হূদি হক বলেন, 'বাবা সবার প্রিয় মানুষ ছিলেন। তাঁর স্মরণে এ আয়োজনে নাট্যকর্মীরা বেশ সাড়া দিয়েছেন। আমরা একেকজন একেক নাট্যদলে কাজ করি। কিন্তু বাবার লেখা নাটকে ঢাকার স্বনামধন্য নাটকের দলগুলো একসঙ্গে কাজ করছে। নাট্যাঙ্গনে এমন ঘটনা বিরল। দারুণ এক অভিজ্ঞতাও বটে।'
'একাত্তর ও একজন নাট্যকার' নাটকের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের কর্মী, অভিনেতা রওনক হাসান। তিনি বলেন, 'ইনামুল স্যারকে ভীষণ শ্রদ্ধা করি। শ্রদ্ধার জায়গা থেকে বন্ধু হূদি হকের আমন্ত্রণে এ নাটকে কাজ করেছি। এমন একটা উদ্যোগে যুক্ত হওয়া সম্মানের। নাটক মঞ্চায়নের পাশাপাশি কথা, আবৃত্তি, লেখায় তুলে আনা হয়েছে ইনামুল হকের বর্ণাঢ্য জীবন। গুণী নাট্যব্যক্তিত্বদের নিয়ে এরকম আয়োজন আরও হওয়া উচিত বলে মনে করি। তাহলে নাট্যকর্মীদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক আরও বাড়বে। সত্তর, আশি ও নব্বইয়ের দশকে অনেক ভালো ভালো নাটক লিখেছেন ইনামুল হক। তার চেয়েও বড় হলো, তিনি ইতিহাসের সঙ্গে জড়িয়ে আছেন। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর বিটিভিতে প্রচারিত প্রথম নাটক ও একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে লেখা প্রথম নাটকের নাট্যকারও ছিলেন এই নাট্যব্যক্তিত্ব।

আরও পড়ুন

×