ঝলমলে ঘন চুল ভালো স্বাস্থ্যের প্রতিফলন। শুধু তেল-শ্যাম্পু করলেই যে চুল ভালো থাকবে, তা নয়। শরীরে কোনো সমস্যা হলেই তার প্রভাব পড়বে চুলের স্বাস্থ্যের ওপর। শুধু শারীরিক সমস্যাই নয়, দূষণ, স্ট্রেস বা অতিরিক্ত স্টাইলিং করলেও চুলের বহুল ক্ষতি হতে পারে। নারীদের ক্ষেত্রে যেমন চুল রুক্ষ ও শুস্ক হয়ে পড়তে পারে, তেমনই পুরুষদের ক্ষেত্রে টাক পড়ার সমস্যা দেখা দিতে পারে। সঠিক ডায়েট এবং লাইফস্টাইলের গুরুত্ব এ ক্ষেত্রে অনেকটাই। চুল পড়া রোধ করতে খুব বড়সড় পরিবর্তন যে দরকার, তা নয়। অনেক ক্ষেত্রে ছোট ছোট লাইফস্টাইল মডিফিকেশনেই বরং বেশি ভালো ফল পাওয়া যায়।
রোজকার খাবারে পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন রাখা একান্ত জরুরি। চুলের প্রাথমিক উপাদান যেহেতু প্রোটিন, তাই শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি হলে চুলের স্বাস্থ্যও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মাছ, মাংস, ডিম তো রাখবেনই; তবে চুল ভালো রাখতে বেশি উপকারী উদ্ভিদজাত প্রোটিন। ডাল, বিনস, ছোলা, স্প্রাউটস ইত্যাদি অবশ্যই খান। প্রাণিজ প্রোটিনের মধ্যে বেশি করে খেতে পারেন সি-ফুড। চিংড়ি বা সামুদ্রিক মাছে থাকা প্রোটিন চুল ঝলমলে রাখতে সাহায্য করবে।

যাদের হজম ক্ষমতা ভালো নয়, তাদের জন্য শুধু প্রোটিন খাওয়াই যথেষ্ট নয়। কারণ, প্রোটিন খেলেও তা শরীরে ঠিকমতো শোষিত না হলে উপকার পাবেন না। তাই তাদের প্রোটিনের পাশাপাশি জরুরি মিনারেল ও তা হজম করার জন্য বাড়তি এনজাইম এবং নিউট্রিয়েন্টসও শরীরকে দিতে হবে।

অনেকেরই চুলের সমস্যার পেছনে থাইরয়েডের সমস্যা লুকিয়ে থাকে, যা সহজে কেউ খেয়াল করেন না। তাই চুল নিয়ে খুব বেশি সমস্যা হলে একবার থাইরয়েড টেস্ট করিয়ে নিন। লো-থাইরয়েড শরীরে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন এ শোষণে বাধা দেয়। তাই সে ক্ষেত্রে ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন এ সাপ্লিমেন্ট নিলে উপকার পাওয়া যাবে।

এ ছাড়া জিঙ্ক, আয়রন, ভিটামিন বি-৬ এবং বি-১২ রয়েছে, এমন খাবার বেশি পরিমাণে খান।

ধূমপান থেকে বিরত থাকুন। কারণ, এটি শরীরে ফ্রি-র‌্যাডিক্যালস তৈরি করে, যা রক্তনালিতে জমাট বেঁধে চুলের গোড়ায় পুষ্টি জোগান দেওয়ায় বিঘ্ন ঘটায়।
ডায়েটের পাশাপাশি নিয়মিত পর্যাপ্ত ঘুম খুব জরুরি। ঘুমের ঘাটতি শরীরের স্ট্রেস লেভেল বাড়াবে এবং চুল পড়াও ত্বরান্বিত করবে।
হাই ইনটেনসিটি ওয়র্কআউট করতে পারেন সপ্তাহে পাঁচ-ছয় দিন। এতে শরীরে রক্ত সঞ্চালন বাড়বে, শরীরের ইনসুলিন রেসিস্ট্যান্স কমবে এবং চুলের গোড়ায় পুষ্টিও দ্রুত পৌঁছাবে। হজম ক্ষমতাও বাড়বে দ্রুত।

এসব লাইফস্টাইল মডিফিকেশনের পাশাপাশি কিছু বাহ্যিক যত্নও জরুরি। অতিরিক্ত ঠান্ডা বা গরম থেকে চুলকে সুরক্ষা দিন। দুটোই চুলের পক্ষে ক্ষতিকর। চুল পরিস্কার করতে মাইল্ড শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। ফলটা হাতেনাতে পাবেন। া
ছবি :শৈলী আর্কাইভ