এই তপ্ত গ্রীষ্ফ্মে গোলাপি উচ্ছ্বাস নিয়ে প্রকৃতিতে ফুটে আছে লাল সোনাইল। চোখে বুলিয়ে দিচ্ছে প্রশান্তির পরশ। লাল সোনাইল বহুবর্ষজীবী মাঝারি আকৃতির বৃক্ষ। উদ্ভিদটির প্রজাতির নাম  Cassia javanica, কারও কারও মতে উপপ্রজাতির নামCassia javanica subsp. nodosa (Buch.-Ham. ex Roxb.) K.Larsen & S.S.Larsen), এটি Fabaceae পরিবারের উদ্ভিদ। ইংরেজিতে Java Cassia, Pink Shower, Apple Blossom Tree
ইত্যাদি নামে পরিচিত।

ফুলের ছবিটি গত ৫ মে ময়মনসিংহের কাচিঝুলির ঈদগাহ মসজিদের সামনে থেকে তোলা। এ মসজিদের উত্তর-পশ্চিম পাশের একটি লাল সোনাইল গাছ ফুলে ফুলে ছেয়ে আছে। এ গাছের উচ্চতা ১০ থেকে ১৫ মিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। মাথা ছড়ানো, পত্রমোচী, যৌগিক পাতা একপক্ষল, ১৫ থেকে ৩০

সেন্টিমিটার লম্বা, জোড়পক্ষ, পত্রিকা ১৬ থেকে ২৮টি মসৃণ, কিন থেকে পাঁচ সেন্টিমিটার লম্বা। শীতে পাতা ঝরে যায় ও গ্রীষ্ফ্মের শুরুতে কচি পাতার সঙ্গে গোলাপি রঙের ফুলের ছোট ছোট থোকায় গাছ ভরে ওঠে। গাছের সব ডালেই সবুজ পাতার ফাঁকে ফাঁকে অসংখ্য ফুল ফোটে।

ফুল প্রায় তিন সেন্টিমিটার চওড়া, সুগন্ধি, পাপড়ি ও পুংকেশর অসমান। ফল গোল ও লম্বা, গাঢ়-ধূসর, শক্ত। বীজ অনেক। বীজের মাধ্যমে চাষ হয়। ফুলের রং ও প্রস্টম্ফুটনের প্রাচুর্যে নানা রকমের দেখা যায়। লালচে গোলাপি ও সাদার সংমিশ্রণে এই ফুলের গাছ সৌন্দর্যবর্ধনে অনন্য। ঢাকার গুলশান লেক এলাকায় হোটেল র‌্যাডিসন চত্বরে এই ফুলের কয়েকটি গাছ রয়েছে। ময়মনসিংহে জয়নুল আবেদিন পার্কের মূল গেটের উল্টো দিকে, বিভাগীয় বন কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে, আমলাপাড়ায় লাল সোনাইল ফুল তার সৌন্দর্য ছড়াচ্ছে। উদ্ভিদটির আদিনিবাস দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায়। বাংলাদেশ, পূর্ব-ভারত ও মিয়ানমার থেকে ইন্দোনেশিয়া পর্যন্ত এর বিস্তৃতি।

বিষয় : লাল সোনাইল গোলাপি উচ্ছ্বাস লাল সোনাইল ফুল

মন্তব্য করুন