হাল ফ্যাশনের মেয়েদের কাছে হাইহিলের জুতার দারুণ কদর। ফ্যাশন গার্লরা এসব জুতো পরে সাবলীল ভঙ্গিমায় ক্যাটওয়াক করতে পারে। শুধু শহুরে মেয়েরাই নন, গ্রামেগঞ্জে মেয়েরাও হাইহিলের জুতা স্বাচ্ছন্দ্যের সঙ্গে পায়ে দিয়ে থাকেন। কিন্তু এই হাইহিলের জুতা সত্যিকার অর্থে মেয়েদের স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। আপনি যদি দুই ইঞ্চি হিলের জুতা পরেন তাহলে আপনার অস্টিও আর্থ্রাইটিসের ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে। অস্টিও আর্থ্রাইটিস এমন একটা যন্ত্রণাদায়ক অবস্থা যে ক্ষেত্রে অস্থিসন্ধিগুলোর অবনতি ঘটে। হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের এক গবেষণা থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

আগে বিভিন্ন গবেষণা থেকে দেখা গিয়েছিল যে, যেসব লোক তাঁদের কোমর ও হাঁটুর অস্থিসন্ধিতে অবিরাম চাপ দেন বা ভার বহন করেন তাঁদের অস্টিও আর্থ্রাইটিস বা গেঁটে বাতের ঝুঁকি খুবই বেশি থাকে।

বর্তমান গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, নারীরা হাইহিলের জুতা পরে হাঁটলে তাদের কোমর ও হাঁটুর অস্থিসন্ধিতে অতিরিক্ত ওজন বহন করার মতোই চাপ পড়ে আর এটা অস্টিও আর্থ্রাইটিসের একটা ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়। যেসব নারী খালি পায়ে হাঁটেন, তাদের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য।

এই গবেষণা থেকে এটা আরও স্পষ্ট হয়েছে যে, নারী কেন পুরুষের চেয়ে দ্বিগুণ পরিমাণ অস্টিও আর্থ্রাইটিসে ভুগে থাকেন। আসলে যত ঝামেলার মূলে এই হাইহিল জুতা।

অস্টিও আর্থ্রাইটিসের ঝুঁকি এড়াতে গবেষকরা পরামর্শ দিচ্ছেন সর্বদা ফ্যাটহিলের জুতা পরতে। আর হাইহিল যদি পরতেই হয় তাহলে সেটা রেখে দেবেন বিশেষ কোনো পর্বের জন্য। সার্বক্ষণিক ব্যবহারের জন্য এ জুতা আর নয়। কর্মক্ষেত্রে কিংবা সাধারণভাবে কখনোই হাইহিলের জুতা পরবেন না। মনে রাখবেন হাইহিলের জুতা পরলে আপনার গোড়ালি দুটোতে যে চাপ পড়ে তার কারণে আপনার হাঁটু দুটি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।
[হাড় জোড়া বিশেষজ্ঞ]

বিষয় : হাইহিলের জুতা বাতের সমস্যা অস্টিও আর্থ্রাইটিস

মন্তব্য করুন