জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার সঙ্গে সংগতি রেখে তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষা, উদ্যোক্তা তৈরি, সামাজিক উদ্ভাবন এবং যুব উন্নয়নে কাজ করছে যুব নেতৃত্বাধীন সংস্থা ইয়ুথ হাব।

সম্প্রতি তাদের কাজের গণ্ডি দেশ ছাড়িয়ে পৌঁছে গেছে বিশ্বমঞ্চে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত বাংলাদেশি শিশু-কিশোরসহ মালয়েশিয়ার বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংগঠনের সহযোগিতায় দেশটির বিভিন্ন স্কুলে তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষা নিয়ে কাজ করেছে। বর্তমানে দেশ-বিদেশ মিলেয়ে প্রায় এক হাজারের বেশি বাংলাদেশি শিশু-কিশোর ইয়ুথ হাব থেকে স্ট্ক্রেচ, পাইথন, এমআইটি অ্যাপ ইনভেন্টর, অ্যাপ মেকার প্লাস শিখছে। এ ছাড়া মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রবাসী শিশু-কিশোরদের নিয়ে 'মুজিব ও বাংলাদেশ-হ্যাকাথন' আয়োজন করে।

প্রবাসী শিশুদের ডিজিটাল বাংলাদেশের অংশীদার করতে ২০১৭ সাল থেকে কোডিং কোর্স, বুট ক্যাম্পসহ বিভিন্ন কর্মশালার আয়োজন করছে। স্থানীয় মাধ্যমিক স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের লক্ষ্য করে গার্লস ইন আইসিটি শিরোনামের উদ্যোগ পরিচালনা করছে। এ ছাড়া তাদের নিরাপত্তার জন্য সাইবার নিরাপত্তা সচেতনতা ইভেন্ট করে আসছে।

পাভেল সারওয়ার কয়েকজন তরুণকে সঙ্গে নিয়ে ইয়ুথ হাব প্রতিষ্ঠা করেন। শুরুতে তাদের লক্ষ্য ছিল, আগামী প্রজন্মের কাছে সহজ কিন্তু শক্তিশালী বার্তা ছড়িয়ে দেওয়া; আর তা হচ্ছে- আপনি যা পছন্দ করেন তা করুন,

অন্যদের অনুপ্রাণিত করুন এবং বিশ্বকে পরিবর্তন করুন। দিনে দিনে তাঁদের কাজের ব্যাপ্তি বেড়েছে। বর্তমান কাজ ও ব্যস্ততা নিয়ে
ইয়ুথ হাবের সভাপতি পাভেল সারওয়ার বলেন, 'আমরা মূলত ৬ থেকে ১৬ এবং ১৭ থেকে ৩৫- এই দুই শ্রেণি নিয়ে কাজ করছি। আমাদের
অন্যতম উদ্যোগ হচ্ছে স্কুল কোডার্স, যার উদ্দেশ্য, ৬ থেকে ১৬ বছর বয়সী শিশু-কিশোরদের কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ের সঙ্গে পরিচিত করা। এ ছাড়া কোডিং সম্পর্কে মৌলিক বিষয়গুলো শেখানো, শিক্ষার্থীদের স্কুলজীবন থেকেই কম্পিউটার শিক্ষার প্রতি আকৃষ্ট করা, আইসিটি ও বিশেষ করে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং সম্পর্কে তাদের দক্ষতা উন্নয়ন।

আর আমরা স্কুল কোডার্স নামে বিশেষ এক উদ্যোগ নিয়ে কাজ করছি, যার উদ্দেশ্য তরুণরা। অভিভাবক, শিক্ষাবিদ, শিক্ষার্থী, বেসরকারি খাত এবং নীতিনির্ধারকসহ সবার জন্য ন্যায়সংগত এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক স্টিম শিক্ষার অগ্রগতি সাধন করা।'
সফট স্কিল ডেভেলপিংয়ের মাধ্যমে তরুণদের উৎপাদনশীল এবং যোগ্য নাগরিক গড়ে তুলতেও কাজ করছে ইয়ুথ হাব। তরুণদের সিভি রাইটিং, কমিউনিকেশন স্কিল বাড়ানো, ডিজিটাল মার্কেটিং, ফেসভিউ ইন্টারভিউ বোর্ড ইত্যাদি বিষয়ের ওপরও প্রশিক্ষণ দিচ্ছে তারা। এ ছাড়া ইয়ুথ হাব সরকারি-বেসকারি, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে বিভিন্ন সভা সেমিনারের নিয়মিত আয়োজন করে আসছে।