সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে মৌখিক পরীক্ষা দিতে আসা এক পরীক্ষার্থীকে আটক করেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। তাদের দাবি, ওই পরীক্ষার্থীর হয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০২০ এর লিখিত পরীক্ষায় প্রক্সি দেন অন্য একজন। আর লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর ওই পরীক্ষার্থী নিজেই মৌখিক পরীক্ষা দিতে আসেন

সোমবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে এলে তাকে আটক করা হয়। আটক মো. মুজিবুর রহমান (৩২) সাতকানিয়া উপজেলার জনার কেওচিয়া গ্রামের ফজলুল কবিরের ছেলে।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, গত ২২ এপ্রিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় অংশ নিয়ে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন মুজিবুর রহমান। পরে সোমবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে আসেন তিনি। কিন্তু ভাইভা বোর্ডে হাতের লেখা মিলিয়ে দেখার সময় লিখিত পরীক্ষার খাতার সঙ্গে তার হাতের লেখায় অমিল পাওয়া যায়। এতে ভাইভা বোর্ডে উপস্থিত উপস্থিত কর্মকর্তাদের সন্দেহ হয়

এরপর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি স্বীকার করেন, কক্সবাজার জেলার পেকুয়া উপজেলার মানিক নামের এক বন্ধুর মাধ্যমে পাঁচ লাখ টাকার চুক্তির বিনিময়ে অন্য একজন তার হয়ে লিখিত পরীক্ষায় অংশ (প্রক্সি) নিয়েছিলেন। পরে তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার প্লাবন কুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সমকালকে বলেন, আটক পরীক্ষার্থীকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে।