বর্ষাকালে মশার উপদ্রব বেড়ে যায়। মশার হাত থেকে মুক্তি পেতে অধিকাংশই বেছে নেন কেমিক্যালযুক্ত স্প্রে। এসব স্প্রে ছাড়াও প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে ঘর মশামুক্ত রাখা যায়। লিখেছেন নাজমুন নাহার
বছরের এই সময়ে বৃষ্টির সঙ্গে সঙ্গে বেড়ে যায় মশার যন্ত্রণা। বাড়ির আশপাশে বৃষ্টির পানি জমে থাকায় বাড়ির আঙিনা ভেজা ও স্যাঁতসেঁতে থাকে; যা মশার বংশবিস্তারের উপযুক্ত স্থান হিসেবে কাজ করে। মশার কামড়ে শুধু চুলকানি বা র‌্যাশই হয় না- ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়াসহ গুরুতর সব রোগও হয়ে থাকে।
কর্পূর
কর্পূরের ব্যবহার হয়ে আসছে সেই প্রাচীন যুগ থেকে। আমাদের মা-চাচিরা নতুন কাপড় আলমারিতে তুলে রেখে চারপাশে কর্পূর ছড়িয়ে দিতেন, যেন পোকামাকড় কাপড় কেটে না ফেলে। ঠিক তেমনিভাবে কর্পূর মশা তাড়াতেও দারুণ কার্যকরী। ছোট একটি মাটির পাত্রে কিছু কর্পূর ছিটিয়ে তাতে আগুন জ্বালিয়ে ধোঁয়া সৃষ্টি করুন। কর্পূর মিশ্রিত ধোঁয়ার সুগন্ধে মশা পালিয়ে যাবে।
এ ছাড়াও দু'তিনটি কর্পূর ট্যাবলেট ছোট পানি ভর্তি বাটিতে রেখে, তা আপনার ঘরের খাটের নিচে বা কোনায় রেখে দিন। দেখবেন নিমেষেই সব মশা উধাও। দু'তিন দিন পরপর বাটির পানি পরিবর্তন করে দিন। এই পানি ফেলে না দিয়ে ঘর মোছার কাজে ব্যবহার করতে পারেন।
আদা
আদায় রয়েছে প্রাকৃতিক কিছু উপাদান, যা মশাকে দূরে রাখে। এর মধ্যে সালফার অন্যতম। কিছু আদা টুকরো করে কেটে পানি দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর সেই পানি বোতলে ঢুকিয়ে ঘরের আনাচে-কানাচে স্প্রে করুন। আদার সুগন্ধে দীর্ঘ সময় আপনার ঘর থাকবে মশামুক্ত।
পুদিনা পাতা
পুদিনা পাতার সুগন্ধি মশাদের খুবই অপছন্দ। কিছু তাজা পুদিনা বা পুদিনার তেল নিন এবং ঘরের চারপাশে তা ছড়িয়ে দিন। এ ছাড়াও হোমমেইড জিপার ব্যাগে পুদিনার গাছ লাগিয়ে তা জানালার কাছে, বারান্দায় রাখতে পারেন। পুদিনার সুগন্ধে মশা দূরে থাকবে।
তুলসী পাতা
সর্দি-কাশির প্রতিষেধক হিসেবে তুলসীর ব্যবহার হয়ে আসছে বহু আগ থেকে। মশা ও কীটপতঙ্গের কাছে তুলসী একটি বিষাক্ত উদ্ভিদ। তাই ঘরের প্রবেশদ্বারে তুলসী লাগালে ঘর মশা ও কীটপতঙ্গ মুক্ত থাকে। এ ছাড়াও তুলসী পাতা পানি দিয়ে ব্লেন্ড করে স্প্রে করলেও ভালো ফল পাওয়া যায়।
কফি গুঁড়া
আমাদের প্রত্যেকের ঘরেই কফি গুঁড়া থাকে। যাদের বাড়ির আশপাশে পানি জমে থাকে, সেই জমে থাকা পানিতে কিছু কফি গুঁড়া ছিটিয়ে দিন। এতে করে মশার ডিম বাইরে বেরিয়ে আসবে এবং অক্সিজেনের অভাবে মারা যাবে। এসব প্রাকৃতিক প্রতিষেধকের পাশাপাশি আপনার ঘর সবসময় রাখুন পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন। ঘরে পর্যাপ্ত আলো-বাতাস প্রবেশের ব্যবস্থা রাখুন। জানালায় মসকিউটো নেট লাগাতে পারেন।
টি ট্রি ওয়েল
ত্বক ও চুলের যত্নে টি ট্রি অয়েল ব্যবহার করা হয়। মশা তারাতেও এই তেল কার্যকরী। মশার কামড় থেকে রক্ষা পেতে গায়ে অল্প করে টি ট্রি ওয়েল মেখে নিতে পারেন।
ল্যাভেন্ডার তেল
ল্যাভেন্ডার তেলের সুগন্ধ অনেকে পছন্দ করলেও মশা করে না। আপনার ঘরে যদি রুম ফ্রেশনার হিসেবে ল্যাভেন্ডারের নির্যাস ব্যবহার করেন তাহলে মশা আসবে না। া