দিন ও রাতকে যতই মেলাতে চাই
ঠিক এর মাঝখানে এসে দাঁড়িয়ে যায় 
                  একটি বিভেদরেখা।

কে বা কারা দূরের বরফকলে উষ্ণতা খোঁজে?
একাকিত্বের সাতসমুদ্দুর পাড়ি দিয়ে ডুবে যাই
জনকোলাহলে; অন্ধকার আমার বিশ্বস্ত প্রেমিকা
            ঠোঁট বাড়িয়ে অহর্নিশ স্বাগত জানায়।
ড্রাগন ফলের মতো স্বাদু জিহ্বায় চাখে মুহুর্মুহু। 
কী অদ্ভুত শিহরনে ডুবে যায় শরীরী-পৃথিবী।
এই অন্ধকারেও কেমন চক্ষুষ্ফ্মান হয়ে উঠি।

স্বপ্টম্ন থেকে কতটা পেছালে মানুষ ছুঁয়ে ফেলে
মৃত্যুরেখা?

চন্দ্রাবতী, তুমি প্রতারণাবিষে নীলকণ্ঠ 
ঝাঁপ দিয়েছিলে ফুলেশ্বরী জলে।
ঘন ছায়াঘেরা জন্মগ্রাম পাতুয়ারি সেদিন
দিন ও রাত্রিকে মিলিয়ে দিয়েছিল

বিষয় : পদাবলি

মন্তব্য করুন